বিভাগ - সারাদেশ

নীলফামারীতে কিশোর-কিশোরী ক্ষমতায়ন প্রকল্পের পর্যালোচনা ও এ্যাডভোকেসী সভা

প্রকাশিত

নীলফামারী প্রতিনিধি: নীলফামারীতে আরডিআরএস এর আয়োজনে বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে “কিশোর-কিশোরীদের ক্ষমতায়ন প্রকল্প”এর কার্যক্রম পর্যালোচনা ও এ্যাডভোকেসী সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার(২০জানুয়ারি)দুপুরে নীলফামারী জেলা শহরের বাড়াইপাড়াস্থ আরডিআরএস বাংলাদেশ নীলফামারী শাখার সম্মেলন কক্ষে ইউনিসেফের আয়োজনে দিনব্যাপী এই সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান চৌধুরী।এ সময় তিনি বলেন, বাল্য বিবাহ নিরোধে সচেতনতা সৃষ্টির বিকল্প নেই।এজন্য প্রশাসন, আইন শৃঙ্খলা বাহিনী সব সময় পাশে থাকবে এ কাজে। শুধু আইন প্রয়োগ করে এটি বন্ধ করা সম্ভব নয়। এ বিষয়ে বিভিন্ন শ্রেণীর পেশাজীবীসহ জনপ্রতিনিধি, গণমাধ্যম কর্মী, ধর্মীয় নেতা, গ্রাম পুলিশ,অবিভাবকসহ সমাজের সকল নাগরিকদের সম্পৃক্ত করতে হবে।

জেলা প্রশাসক আরো বলেন, দিনের বেলা সুর্যের আলোতে বিয়ে সম্পন্ন ও ইউনিয়ন পরিষদে নিকাহ রেজিস্টারের অফিস স্থাপন করা হচ্ছে। এই অফিসে বিয়ের রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করতে হবে।

সভায় আয়োজকরা বাল্যবিবাহ রোধে বাংলাদেশ সরকার ও ইউনিসেফের কান্ট্রি প্রোগ্রামের ডকুমেন্ট ২০১৭-২০১৯ এর কর্মসুচির আউটপুট তুলে ধরেন।তারা জানায়, রংপুর বিভাগের মধ্যে তুলনামুলক বেশি বাল্য বিবাহ হয় নীলফামারীতে। দারিদ্রতা, নিরাপত্তা, প্রেম ছাড়াও বাল্য বিবাহ আইন সঠিক ভাবে প্রয়োগ না হওয়ার কারণে এমনটি হচ্ছে। এজন্য ইউনিসেফের সহযোগীতায় জেলার ডোমার, ডিমলা ও কিশোরীগঞ্জ উপজেলায় ২০১৮সালের জুন থেকে ২০২০সালের জুন পর্যন্ত ‘বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে কিশোর-কিশোরীদের ক্ষমতায়ন’ প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।প্রকল্পের আওতায় ১৫০টি কিশোর কিশোরী ক্লাব গঠন করে ২১টি বাল্য বিবাহ বন্ধ এবং ১২৫টি উদ্যোগ বন্ধ করা হয়েছে।

আরডিআরএস বাংলাদেশ ফিল্ড অপারেশনের পরিচালক হুমায়ুন খালেদের সভাপতিত্বে এসময় বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সরকারের উপপরিচালক আব্দুল মোতালেব সরকার, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আজাহারুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) রবিউল ইসলাম, ইউনিসেফের রংপুর-রাজশাহী বিভাগের ফিল্ড অফিস প্রধান নাজিবুল্লাহ হামিম, জেলা সমাজ সেবা অধিদপ্তরের উপপরিচালক ইমাম হাসিম, জেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উপপরিচালক নুরুন্নাহার শাহজাদী, ইউনিসেফের রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের শিশু সুরা প্রজেক্টের প্রধান কর্মকর্তা জেসমিন হোসাইন, বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে কিশোর-কিশোরীদের ক্ষমতায়ন প্রকল্পের সমন্বয়কারী গোলাম মেহেদী প্রমুখ।

চেয়ারম্যানদের পক্ষে ডিমলা উপজেলার খগাখড়িবাড়ি ইউনিয়ন চেয়ারম্যান রবিউল ইসলাম লিথন ও কিশোর-কিশোরী ফোরামের পক্ষে অগ্রযাত্রা কিশোর কিশোরী ক্লাবের সভাপতি জেসমিন আকতার জুই বক্তব্য রাখেন। এছাড়াও সভায় বিভিন্ন ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যান, কিশোর কিশোরী ফোরামের প্রতিনিধিসহ গণমাধ্যমকর্মীরা অংশ গ্রহন করেন।