নেতাকর্মীদের ওপর নির্যাতন বাড়ানো বিএনপিকে নিশ্চিহ্ন করার কূটকৌশল: মির্জা আলমগীর

প্রকাশিত

নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনাভাইরাস সংক্রমণের মধ্যে দুঃস্থ মানুষের পাশে দাঁড়ানো নেতাকর্মীদেরকে গ্রেপ্তার ও তাদের ওপর নির্যাতন বাড়িয়ে দেওয়া মূলত বিএনপিকে নিশ্চিহ্ন করার সরকারের ধারাবাহিক কূটকৌশল বলে মন্তব্য করেছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

ফরিদপুরের নগরকান্দা পৌর বিএনপি’র সভাপতি আসাদুজ্জামান আসাদকে একটি ‘মিথ্যা ও রাজনৈতিক’ উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলায় গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠানোর ঘটনায় আজ শনিবার এক বিবৃতিতে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে তিনি এ মন্তব্য করেন।

বিএনপির সহদপ্তর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘বর্তমান শাসকগোষ্ঠী কর্তৃক বিএনপিসহ দেশের বিরোধী রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দকে মিথ্যা ও রাজনৈতিক হীন উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলায় জড়িয়ে গ্রেপ্তাররের মাধ্যমে নির্যাতন-নিপীড়ণের মাত্রা দিনে দিনে বেড়েই চলেছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘বর্তমানে করোনাভাইরাসের দুর্যোগময় সময়ে সারা দেশে বিএনপি এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা অসহায়-দুস্থ মানুষদের জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। এ সময়ে সরকার সেটিকে বাধাগ্রস্ত করতেই নেতাকর্মীদের ওপর জুলুমের স্টিম রোলার চালাতে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। মূলত, বর্তমান অপশাসন নিয়ে সোচ্চার বিএনপিকে নিশ্চিহ্ন করে দিতে এটি সরকারের ধারাবাহিক কূটকৌশল।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আসাদ্জ্জুামান আসাদ নিঃসন্দেহে সরকারের চরম রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার। আমি অবিলম্বে তার বিরুদ্ধে দায়ের করা ষড়যন্ত্রমূলক, বানোয়াট ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিলের মামলা প্রত্যাহার এবং নিঃশর্ত মুক্তির জোর দাবি জানাচ্ছি।’