বিভাগ - খেলাধুলা

বঙ্গবন্ধু বিপিএলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের টিকেটের মূল্য প্রকাশ

প্রকাশিত

ক্রীড়া প্রতিবেদক: বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের আড়ম্বরপূর্ণ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের টিকেটের মূল্য তালিকা প্রকাশ করেছে বিসিবি। সর্বনিম্ন এক হাজার থেকে সর্বোচ্চ ১০ হাজার টাকা দামের টিকেট দিয়ে বলিউড তারকা সালমান খান, ক্যাটরিনা কাইফের পরিবেশনে দেখা যাবে। তবে টিকেটের সংখ্যা থাকছে খুবই সীমিত। দেশের বেশ কয়েকটি জায়গা থেকে এই অনুষ্ঠান দেখা যাবে জায়ান্ট স্ক্রিনেও।

আগামী রোববার (৮ ডিসেম্বর) বিকেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উদ্বোধন করবেন এবারের বিপিএলের। পরে শুরু হবে জমকালো উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। সেখানে পরিবেশনা নিয়ে আসছেন বলিউড তারকা সালমান খান, ক্যাটরিনা কাইফ। সঙ্গীত পরিবেশন করতে আসছেন কৈলাশ খের, সনু নিগাম। থাকছেন বাংলাদেশের মমতাজ ও জেমস।

এই অনুষ্ঠান দেখতে রাখা হয়েছে তিন ক্যাটাগরির টিকেট। একদম মঞ্চের সামনে মাঠের ভেতরের টিকেটের মূল্য রাখা হয়েছে ১০ হাজার। গ্র্যান্ড স্ট্যান্ডের টিকেট পাওয়া যাবে আড়াই হাজার টাকায়। ক্লাব হাউজের টিকেটের মূল্য রাখা হয়েছে ১ হাজার টাকা। শুক্রবার থেকে আগ্রহীরা টিকেট পাবেন মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামের এক নম্বর গেইট ও সোহরাওয়ার্দি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে।

তবে বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান জানিয়েছেন মাঠে মঞ্চের অবস্থানের কারণে খুব বেশি মানুষকে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জায়গা দেওয়া যাচ্ছে না। সৌজন্য টিকেটের চাহিদা পূরণ করার পর সাধারণের জন্য থাকতে পারে খুব অল্প সংখ্যক টিকেট, ‘আমাদের অনেক স্টেক হোল্ডার আছে, অনেক সংস্থা আছে। তাছাড়া মন্ত্রীরা আছেন তাদের টিকেট দিতে হবে। সব মিলিয়ে আসলে টিকেট খুব বেশি থাকবে না।’

‘এখানে আমাদের ধারণা অ্যারেঞ্জ কত করতে পারব। আমাদের হাজার পাঁচ ছয় ক্লাব হাউজের এবং গ্র্যান্ড স্ট্যান্ডের দিয়ে দেব। আর ভেতরে প্রায় এক হাজার বা দুই হাজার। প্রায় সাত আট হাজারের মতো টিকেট তারা কিনতে পারবে।’

সব মিলিয়ে ১০ থেকে ১২ হাজারের মতো মানুষকে জায়গা দেওয়া সম্ভব বলে জানান বোর্ড প্রধান। উদ্বোধনী অনুষ্ঠান দেখা যাবে গাজী টিভি, মাছরাঙা ও নিউজ টি-টোয়েন্টিফোর চ্যানেলে।

এছাড়া ঢাকা শহরে চারটাসহ দেশের কয়েকটি শহরে জায়ান্ট স্ক্রিনে এই অনুষ্ঠান দেখানোর ব্যবস্থা হচ্ছে বলে জানান বোর্ড প্রধান, ‘এছাড়া আমরা জায়ান্ট স্ক্রিনের ব্যবস্থা করছি। সাত বিভাগে সাতটা স্ক্রিন থাকবে। আমরা নিজেরাই আয়োজন করছি। ঢাকা শহরে টিএসসিতে একটা বসছে, গুলশান বা বনানীতে একটা বসবে, ধানমন্ডি রবীন্দ্র সরোবরে একটা বসানো হবে। আর এখানে মিরপুরে সিটি কলেজ বা কোথাও একটা বসানোর ব্যবস্থা হচ্ছে।’