বিভাগ - সারাদেশ

বাগেরহাটে আওয়ামী লীগের সন্মেলনকে ঘিরে বইছে উৎসবের আমেজ

প্রকাশিত

শেখ সাইফুল ইসলাম কবির, বাগেরহাট: চার বছর পর বাগেরহাট জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনকে ঘিরে বইছে উৎসবের আমেজ। সোমবার সকাল ১০টায় বাগেরহাট খানজাহান আলী ডিগ্রি কলেজ মাঠে এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। সম্মেলন ঘীরে নেতাকর্মীদের মাঝে উৎসাহ উদ্দিপনা লক্ষ করা গেছে। সম্মেলনে কেন্দ্রীয় নেতাদের স্বাগত জানাতে বাগেরহাট শহরসহ সড়ক-মহাসড়কে শতাধিক দৃষ্টিনন্দন তোরণ নির্মাণ করা হয়েছে। এছাড়া দলীয় পতাকা, বিলবোর্ড, ব্যানার, ফেস্টুন দিয়ে নবরূপে সাজানো হয়েছে শহরকে। সম্মেলন ঘিরে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে বিরাজ করছে বাড়তি উৎসাহ-উদ্দীপনা। ত্রিবার্ষিক সম্মেলন উদ্বোধন করবেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি মন্ডলীর সদস্য শ্রী পিযূষ কান্তি ভট্টাচার্য, সম্মেলনে প্রধান অতিথি থাকবেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও সড়ক যোগাযোগ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি, সম্মনিত অতিথি শেখ হেলাল উদ্দিন এমপি, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মাহবুব উল-আলম হানিফ, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন, শ্রম ও কর্ম সংস্থান মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান, খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্পন, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য মির্জা আজম, আমিরুল আলম মিলন, বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের উপ-মন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার, বাগেরহাট-২ আসনের সংসদ সদস্য শেখ তন্ময় এমপিসহ কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নের্তৃবৃন্দ।

তবে এবারের সম্মেলনে জেলা কমিটিতে ৩৩ ভাগ নারীর অন্তভূক্তির দাবী জানিয়েছেন নারী নেত্রীরা।জেলা আওয়ামী লীগের নেতারা বললেন, এই সম্মেলনে এবার তরুনদের পাশাপাশি নারী নেত্রীত্বেকেও প্রধান্য দেয়া হবে।খানজাহান আলী কলেজ মাঠে নৌকার আদলে সোমবারের সম্মেলনে বিশাল মঞ্চ তৈরী করা হয়েছে। সম্মেলনে বাগেরহাট শহরসহ সড়ক-মহাসড়কে শতাধিক দৃষ্টিনন্দন তোরণ নির্মাণ করা হয়েছে। এছাড়া দলীয় পতাকা, বিলবোর্ড, ব্যানার, ফেস্টুন দিয়ে নবরূপে সাজানো হয়েছে বাগেরহাট শহরকে।

রেলরোডস্থ জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়সহ শহরের সর্বত্রই সোভা পাচ্ছে দলীয় পতাকাসহ বিভিন্ন ব্যানার, পোস্টার ও ফেস্টুন। গুরুত্বপূর্ন সড়কে করা হয়েছে সম্মেলনের তোরণ। মোড়ে মোড়ে টানানো হয়েছে দলীয় পতাকা। তবে এই সম্মেলনে জেলার শীর্ষ পদে কোন পরিবর্তন না আশায় নেতাদের মধ্যে তেমন কোন উদ্বেগ উৎকন্ঠা নেই। তারপরও উৎসবের কোন কমতি নেই সম্মেলনে।সম্মেলন সফল করতে সব ধরনের প্রস্তুতি এখন প্রায় সম্পূর্ণ।

এদিকে সম্মেলন উপলক্ষে শহরের রেল রোডস্থ দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছে জেলা আওয়ামী লীগ। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ কামরুজ্জামান টুকু। এসময় জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি বাংলাদেশ পুলিশের সাবেক ডিআইজি আব্দুর রহিম খান, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র খান হাবিবুর রহমান, সরদার ফখরুল আলম সাহেব, আওয়ামী লীগ নেতা সরদার বদীউজ্জামান, আবুল হাশেম শিপন, শেখ ইলয়াস হোসেন, নিহার রঞ্জন সাহা, তালুকদার আব্দুল বাকি, সরদার নাসির উদ্দিন, শেখ সেলিমসহ দলীয় নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

ত্রিবার্ষিক সম্মেলন উদ্বোধন করবেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি মন্ডলীর সদস্য শ্রী পিযূষ কান্তি ভট্টাচার্য, সম্মেলনে প্রধান অতিথি থাকবেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও সড়ক যোগাযোগ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি, সম্মনিত অতিথি শেখ হেলাল উদ্দিন এমপি, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মাহবুব উল-আলম হানিফ, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতা এস এম কামাল হোসেন, শেখ সারহান নাসের তন্ময় এমপিসহ কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নের্তৃবৃন্দ।

বিগত ২০১৫ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারী মাসে অনুষ্ঠিত বাগেরহাট জেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক ওই সম্মেলনে সভাপতি নির্বাচিত হন ডা. মোজাম্মেল হোসেন এমপি ও সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত হন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ কামরুজ্জামান টুকু। ৮১ সাল থেকে দীর্ঘ ৩ যুগের অধিক সময় ধরে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসা প্রবীন নেতা ডা. মোজাম্মেল হোসেন এমপি এবারের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনেও কি সভাপতি থাকছেন ? এনিয়ে গুঞ্জন থাকলেও প্রকাশ্যে দলীয় নেতকর্মীরা কেউ মুখ খোলেননি। নেতারা বলছেন, আমরা কেউই পদের জন্য রাজনীতি করিনা। বঙ্গবন্ধুর ভাতিজা বাগেরহাট- ১ আসনের এমপি শেখ হেলাল উদ্দিন বাগেরহাট আওয়ামী লীগের অবিভাবক। পাশাপাশি দলীয় সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যাকে সভাপতি- সাধারন সম্পাদক হিসেবে মনোনীত করবেন, তাকেই দলের সর্বস্তরের নেতাকমীরা সাদরে গ্রহন করবে।

তবে এবারের সম্মেলনে জেলা কমিটিতে ৩৩ ভাগ নারীর অন্তভূক্তির দাবী জানিয়েছেন জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক এ্যাভোকেট শরিফা খানম। তিনি বলেন, দলীয় সভানেত্রীর নির্দেশে ইতিমধ্যেই দলের প্রতিটি ইউনিটে নারী সদস্যের সংখ্যা বাড়ছে। ইতিধ্যেই আমরা সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকের কাছে এবারের বাগেরহাট জেলা কমিটিতে ৩৩ ভাগ নারীর অন্তভূক্তির দাবী জানিয়েছি। এসময়ে সদর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যার রিজিয়া পারভিনসহ দলীয় অন্য নারীনেত্রীরাও তার সাথে একাত্বতা প্রকাশ করেন। বাগেরহাট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ডা. মোঃ মোজাম্মেল হোসেনের সভাপতিত্বে সম্মেলনে বিশ হাজারের অধিক নেতাকর্মীর সমাগম হবে বলে জানিয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ কামরুজ্জামান টুকু।

বাগেরহাট জেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান সভাপতি বর্ষিয়ার নেতা ডাঃ মোজাম্মেল হোসেন এমপি দীর্ঘ প্রায় ৩৭ বছর ধরে সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসছেন। এবছরও তিনি স্বপদে বহাল থাকবেন।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ কামরুজ্জামান টুকু তিনিও দুই বার জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করে আসছেন। তিনি অসুস্থতার দোহাই দিয়ে দায়িত্ব থেকে সরতে চাইলেও শেষ পর্যন্ত তিনিও স্বপদে বহাল থাকবেন এমনটি বলে নেতা কর্মীদের ধারনা।

সর্বশেষ ২০১৫ সালের ১৫ই ফেব্রুয়ারী জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। সম্মেলনে ডাঃ মোজাম্মেল হোসেন এমপি সভাপতি ও শেখ কামরুজ্জামান টুক জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত হন।

বাগেরহাট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক শেখ কামরুজ্জামান টুকু বলেন, সোমবার জেলা ত্রিবার্ষিক সম্মেলনের সকল প্রস্তুতি ইতিমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। ইতিমধ্যেই ওয়ার্ড, ইউনিয়র, পৌরসভা ও উপজেলাগুলোর সম্মেলন সম্পন্ন জয়েছে। এবারের সম্মেলনে প্রায় বিশ হাজার নেতা-কর্মী যোগ দেবেন। তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে চলেছে। জেলা কমিটিতে তরুনদের পাশাপাশি নারী নেত্রীত্বেকেও প্রধান্য থাকবে। দলের নেতাকর্মীরাও একতাবদ্ধ হয়ে একটি শক্তিশালী কমিটি উপহার দেবেন বলে আশা প্রকাশ করেন এই নেতা।সম্মেলনের মধ্যে দিয়ে জঙ্গীবাদ, সন্ত্রাস, দূর্নীতি ও মাদককে না বলব। জননেত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নে যে কাজ করে যাচ্ছেন সেই কাজকে আমরা সমর্থন দিবো।