বিভাগ - সারাদেশ

বাগেরহাটে চিরকুট লিখে কলেজ শিক্ষকের স্ত্রীর আত্মহত্যা

প্রকাশিত

বাগেরহাট প্রতিনিধি: বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ উপজেলায় তিলোত্তমা বাগচী ওরফে তমা বাগচী (২২) নামে এক গৃহবধুর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে উপজেলার সন্ন্যাসী বাজার সংলগ্ন ভাড়া বাসা থেকে পুলিশ তার মরদেহ উদ্ধার করে। তিলোত্তমা বাগচী স্থানীয় এআর খান ডিগ্রী কলেজের পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের সহকারি অধ্যাপক লিঙ্কন দাসের স্ত্রী। নিহত তমা বাগেরহাটের খানপুর এলাকার তাপস কুমার বাকচির মেয়ে ও বাগেরহাটের রামপাল উপজেলার কুমলাই গ্রামের সিবানন্দ দাসের ছেলে লিংকন দাসের স্ত্রী ছিলেন। চাকুরির সুবাদে লিংকন স্ত্রী নিয়ে সন্ন্যাসী বাজারে বাসা ভাড়া করে থাকতেন। স্বামীর নির্যাতন থেকে রেহাই পেতে অনার্স ২য় বর্ষের ছাত্রী গৃহবধু তিলোত্তমা গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ তার পিতা তাপস কুমার বাগচীর।

তাপস কুমার বাগচী বলেন, আড়াই বছর পূর্বে লিঙ্কনের সাথে বিয়ে হয় তিলোত্তমার। বিয়ের পর থেকেই অশান্তি বিরাজ করছিল তাদের সংসারে। চাকুরির সুবাদে লিঙ্কন মোরেলগঞ্জের সন্ন্যাসী এলাকায় বাসা ভাড়া করে থাকতো। সেখানে ঘরের মধ্যে তালাবন্দি করে রাখা হত তিলোত্তমাকে। মোবাইল ফোনও ব্যবহার করতে দিতোনা। প্রায়ই মারপিট করা হতো আমার মেয়েকে। সুযোগ পেলেই আমার কাছে অভিযোগ জানাতেন তিলোত্তমা।

তিনি আরও বলেন, এসব কারনে প্রায় এক বছর পূর্বে তিলোত্তমা স্বামীর সংসারে আর না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। লিঙ্কনের অনুরোধে এক পর্যায়ে যেতে হয়। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আত্মহত্যা করে বাঁচতে হল তিলোত্তমাকে।

এ বিষয়ে মোড়েলগঞ্জ থানার (ওসি) কে,এম আজিজুল ইসলাম জানান, গৃহবধু তিলোত্তমার আত্মহত্যার বিষয়ে একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে নানা ধরণের গুঞ্জণ রয়েছে। লাশ উদ্ধার করে পোষ্ট মর্টেম করাতে বাগেরহাট সদর হাসপাতালে পাঠানো প্রেরণ করা হয়েছে। তিনি আরও জানান, আত্মহত্যার পূর্বে তিলোত্তমা একটি চিরকুট লিখে রেখে গেছেন। সেটি জনসমক্ষে আনা হয়নি। গণমাধ্যম কর্মীদেরকে আপাতত দেখানো যাবেনা। তবে আলামত হিসেবে চিরকুটটি পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে বলে জানান তিনি।