বিভাগ - সারাদেশ

বাগেরহাটে তীব্র শীতে বৃদ্ধা পিতা মাতাকে ঘর থেকে বের করে দিলো সন্তান

প্রকাশিত

বাগেরহাট প্রতিনিধি: “মায়ের এক ধার দুধের দাম, কাটিয়া গায়ের চাম, পাপোশ বানাইলেও ঋণের শোধ হবে না, এমন দরদী ভবে কউে হবে না আমার মা গো”। শিল্পীর কণ্ঠে গাওয়া এমন মর্মস্পশী গান দেশী-বিদেশী অনেক মানুষরে হৃদয়কে নাড়া দিলেও, নাড়া দিতে পারেনি বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলার বদিউজ্জামান মিঠুর মনে। তাইতো হাড় কাপানো তীব্র শীতের মধ্যে বৃদ্ধা পিতা-মাতার ঠাই হয়েছে বাড়ীর সামনে খোলা আকাশের নিচে। সম্পত্তি লিখে না দেওয়ার কারনে একমত্র ছেলে তাদের বাড়ী থেকে বের করে দিয়েছে বলে অভিযোগ বৃদ্ধা শেখ আব্দুল মমিন (৭৫) ও তার স্ত্রী রিজিয়া বেগম (৬৫)। গত চারদিন ধরে হাড় কাপানো তীব্র শীতের মধ্যে বৃদ্ধা মমিন-রিজিয়া দম্পতি খোলা আকাশের নিচে বসবাস করলেও বৃদ্ধা পিতা-মাতার প্রতি সামান্য মায়া দেখায়নি একমাত্র ছেলে মিঠু।

শুক্রবার (২৪ জানুয়ারী) দুপুরে বাগেরহাট প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে এমনই অভিযোগ করেন জেলার ফকিরহাট উপজেলার পিলজংগ ইউনিয়নের শেখ আব্দুল মমিন। এসময় বৃদ্ধা দম্পত্তি বার বার কান্নায় ভেঙ্গে পরেন। সংবাদ সম্মেলনে আব্দুল মমিনের ছোট মেয়ে শাহানাজ আফরোজ উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে কান্না জড়িত কণ্ঠে বৃদ্ধা আব্দুল মমিন ও বিজিয়া বেগম বলেন, “বাড়ী-ঘর জায়গা-জমি সব থাকার সত্ত্বেও আমরা আজ বড় অসহায়”। আমার প্রতিপক্ষ প্রতিবেশিদের কু-প্ররচনায় পরে আমাদের একমাত্র ছেলে আজ আমাদের ঘর থেকে বের করে দিয়েছে। ছেলেকে জায়গা-জমি লিখে না দেয়ায় আজ আমাদের এ অবস্থা। উল্টো আমাদের প্রতিপক্ষ (যাদের সাথে জায়গা-জমি নিয়ে বিরোধ) তাদের প্রত্যক্ষ সহযোগীতায় থানা পুলিশ দিয়ে আমাদের হয়রানী করছে। আমাদের চার মেয়ে ও এক ছেলে। দীর্ঘদিন ধরে আমাদের ছেলে আমাদের উপর অত্যাচার নির্যাতন করতো।

প্রতিবেশি আব্দুর রব বলেন, সম্পত্তির জন্য বৃদ্ধা পিতা-মাতাকে কোন সন্তান এই শীতের মধ্যে ঘর থেকে বের করে দিতে পারে!, এটা আমাদের মেনে নিতে কষ্ট হচ্ছে। জায়গা-জমি নিয়ে বিরোধ, সমস্যা থাকতেই পারে। তাই বলে বৃদ্ধা পিতা-মাতাকে বাড়ী থেকে বের করে দিয়ে কোন সমাধান হতে পারে না।

ফকিরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু সাইদ খায়রুল আনাম বলেন, জায়গা-জমি নিয়ে প্রতিবেশিদের সাথে আব্দুল মমিনের বিরোধ রয়েছে, তবে পুলিশের বিষয়ে যে অভিযোগ করা হয়েছে তা সঠিক নয়।##