বিভাগ - সারাদেশ

বাগেরহাটে শ্লীলতাহনীর অভিযোগে দুই স্কুলশিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশিত

বাগেরহাট প্রতিনিধি : বাগেরহাটের শরণখোলার রায়েন্দা সরকারি পাইলট হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক মো. সুলতান আহমেদ গাজী ও সহকারী শিক্ষক মো. শাহিনুজ্জামান শাহিনের নামে শ্লীলতাহানীর অভিযোগে মামলা মামলা দায়ের করেছেন এক স্কুলছাত্রীর মা। বৃহস্পতিবার রাতে ছাত্রীর মা বাদি হয়ে শরণখোলা থানায় নারী ও শিশু নির্যাতনের ১০/৩০ ধারায় মামলাটি দায়ের করেন।

মামলা সুত্রে জানা যায়, বিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের সহকারী শিক্ষক শাহিনুজ্জামান শাহিন গত বছরের ৩ মার্চ কারিগরি শাখার কমম্পিউটার বিভাগের দশম শ্রেণির ওই ছাত্রীকে কুপ্রস্তাব দেন। এ বিষয়ে প্রধান শিক্ষকের কাছে অভিযোগ করা হলে তিনি কোনো ব্যবস্থা নেননি। এর পর গত ১৮ জানুয়ারি বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া ও সংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহনের জন্য ওই ছাত্রী তার নাম অন্তর্ভুক্ত করতে স্কুলে গেলে শিক্ষক শাহিনুজ্জামান নাম তাকে স্কুল থেকে চলে যেতে বলেন। এই অপমানে সে স্কুল থেকে বের হয়ে কীটনাশক পান করে আত্মহত্যার চেষ্টা করে বলে মামলার এহাজারে উল্লেখ করা হয়। অসুস্থ ওই ছাত্রীকে তখন শরণখোলা উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হয়। বর্তমানে সে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে বলে জানা গেছে। মামলার বাদি ও ছাত্রীর মা জানান, এঘটনায় তার মেয়ে ও পরিবারের মান-সম্মান নষ্ট হয়েছে। শেষপর্যন্ত কোনো উপায় না পেয়ে মামলা করতে বাধ্য হয়েছেন তিনি।

রায়েন্দা সরকারি পাইলট হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক মো. সুলতান আহমেদ গাজী বলেন, এসব বিষয়ে ওই ছাত্রী আমার কাছে কখনো কোনো অভিযোগ করেনি। তার অসুস্থতার খবর শুনে আমি সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতালে ছুঁটে যাই। সেখানে গিয়ে আমার কাছে অভিযোগ করোনি কেনো? জানতে চাইলে মেয়েটি বলে, স্যার আপনার কাছে ভয়ে বলিনি।

প্রধান শিক্ষক আরো বলেন, আমার স্কুলে প্রায় দেড় হাজার স্টুডেন্ট রয়েছে। এর মধ্যে অর্ধেকেরও বেশি হচ্ছে মেয়ে স্টুডেন্ট। এদের মধ্যে থেকে কেউই এধরণের অভিযোগ কোনো শিক্ষকের বিরুদ্ধে করতে পারবেনা। এমন হলে এতো মেয়ে এখানে ভর্তি হতোনা। শরণখোলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসকে আব্দুল্লাহ আল সাইদ বলেন, এহাজার পাওয়া মাত্রই মামলা গ্রহন করা হয়েছে। এব্যাপারে তদন্ত করে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শরণখোলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও রায়েন্দা সরকারি পাইলট হাই স্কুলের সভাপতি সরদার মোস্তফা শাহিন বলেন, এ বিষয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।