বিভাগ - মতামত

বাজার নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হলে সরকারও ব্যর্থ হতে পারে

প্রকাশিত

মুহাম্মাদ মহসীন ভূঁইয়া: সাধারণ মানুষ রাজনীতি বা অর্থনীতি বুঝেনা, দ্রব্যমূল্য তাদের ক্রয়ক্ষমতা মধ্যে থাকলেই খুশি হয় এবং স্বস্তি পায়। বাংলাদেশ মাথাপিছু আয় ১৯০৯ ডলার ঘোষণা করা হয়েছে, জিএনপি প্রবৃদ্ধি ৮% শতাংশের উপরে এবং মুদ্রাস্ফীতি ৫% শতাংশ ঘোষণা করা হয়েছে সর্বশেষ অর্থনৈতিক সমীক্ষায়। দারিদ্র্যের হার ২১% ভাগ বলা হচ্ছে এবং অতি দারিদ্র্য ৮% ভাগ। মাথাপিছু আয়, জিএনপি, জিডিপি, দারিদ্র্যের হার বা মুদ্রাস্ফীতি অথবা প্রবৃদ্ধি বাড়লো কি কমলো এগুলো সরকারের বা রাষ্ট্রের হিসেবের প্রয়োজন, সাধারণ জনগণ জীবন যাত্রায় এগুলোর খুব একটা প্রয়োজন আছে বলে আমি মনে করিনা, জনগণ কাজ করবে আর দুবেলা দুমুঠো খেতে পারবে, এটাই তাদের বড় চাওয়া পাওয়ার বিষয়। চাকুরীজীবি বলেন আর ব্যবসায়ী বলেন অথবা কৃষক কিংবা মজুর বলেন, সবার একটাই চাওয়া, আয়ের সাথে ব্যয়ের যেন কাছাকাছি মিল থাকে, তাদের যেন চলতে ও ফিরতে সমস্যা না হয়, জনগণ রাষ্ট্র ক্ষমতায় কে আছে বা কে আসবে এগুলো নিয়ে বেশি ভাবতে চায়না, তারা চায় নাগরিক সুবিধা ও নিরাপত্তা। যে সরকার নাগরিক সুবিধা ও জননিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ হবে, দ্রব্য মূল্য নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হবে, তাদের উপর থেকে জনগণের আস্তা ও বিশ্বাস উঠে যাবে। উন্নয়নের মহাকাব্য জনগনকে শুনিয়ে লাভ নেই, জনগণ কাব্য পছন্দ করেনা, জনগণ দেখে জীবনমান ও জীবনযাত্রার ব্যয়ের সাথে আয়ের তুলনামূলক মিল কতটুকু আছে। জিডিপি বা জিএনপি বা মাথাপিছু আয় বাড়লো বিড়াল গতিতে আর দ্রব্য মূল্য বাড়লো ঘোড়ার গতিতে, জনগণ কোথায় যাবে, কিভাবে চলবে, আয়ের পুকুর যদি ব্যয়ের নদীতে চলে যায়, তাহলে জনগন কোথায় যাবে ? কিভাবে চলবে ? সরকার লবনের বাজার নিয়ন্ত্রণে আনলো তিন দিনে, আর পেয়াজের বাজার তিন মাসেও নিয়ন্ত্রণ করতে পারছেনা, এটা কি করে হয়, দেশের বাজার কি তাহলে সরকারের নিয়ন্ত্রণের বাহিরে চলে যাচ্ছে ?

নাকি সরিষায় ভূত বসে ভূত তাড়ানোর মন্ত্র দিচ্ছে ? মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা একজন দক্ষ রাষ্ট্র চালক, তিনি টানা তিনবার নির্বাচিত হয়ে ক্ষমতায় আছেন, রাষ্ট্র পরিচালনায় উনার দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা পরিপূর্ণ। উনি কি করে দ্রব্যমূল্য বা বাজার নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হয় ? উনার চাওয়া বা পাওয়া হলো দেশ ও জনগণের সেবা করা, ইতিমধ্যে তিনি দুর্নীতির বিরোদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করে নিজ দলে শুদ্ধি অভিযান শুরু করেছেন। আর ঠিক এই মূহুর্তে হঠাৎ করে দ্রব্যমূল্যের বাজার নিয়ে ষড়যন্ত্র কি আসলে স্বাভাবিক না অন্য কোন নতুন ষড়যন্ত্রের আভাস। কারা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে ব্যর্থ দেখতে চায় ? কারা দুর্নীতি বিরোধী অভিযানে অখুশি ? কারা বাজারের অস্থিতিশীলতা সৃষ্টি করে ফায়দা নিতে চায় ? এবিষয় গুলো ভেবে দেখা প্রয়োজন।

লেখকঃ
প্রধান সম্পাদক
আলোকিত কুমিল্লা নিউজ