বিএনপি যদি না থাকতো তাহলে দেশ আরও বহুদূর এগিয়ে যেতো: হাছান মাহমুদ

প্রকাশিত

এওয়ান নিউজ: তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেছেন, “আমাদের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি আরও বেশি হতো যদি নেতিবাচক রাজনীতি না থাকতো, সাংঘর্ষিক রাজনীতি না থাকতো। সবকিছুতে ‘না’ বলার যে সংস্কৃতি বিরোধী দলের, বিশেষ করে বিএনপি যদি না থাকতো তাহলে দেশ আরও বহুদূর এগিয়ে যেতে পারতো।’

মঙ্গলবার (২৮ জানুয়ারি) রাজধানীতে জাতীয় প্রেস ক্লাবের আব্দুস সালাম হলে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক উপ-কমিটি আয়োজিত ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর ১০ জানুয়ারি স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের ভাষণ পর্যালোচনা’ শীর্ষক সেমিনারে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় মন্ত্রী বাংলাদেশ এখন বিশ্বে ২৮তম অর্থনীতির দেশ বলেও মন্তব্য করেন।

হাছান মাহমুদ বলেন, “পৃথিবীর সব দেশে রাজনৈতিক মতপার্থক্য আছে এবং থাকবে। আমরা একটি গণতান্ত্রিক দেশে বসবাস করি। এখানে ভিন্নমত থাকবেই, সরকারের সমালোচনা থাকবেই। কিন্তু অন্ধ সমালোচনা, একচোখা সমালোচনা গণতন্ত্রের জন্য ভালো নয়, রাষ্ট্রের জন্যও ভালো নয়। আমরা যদি নেতিবাচক রাজনীতি পরিহার করতে পারতাম, সাংঘর্ষিক রাজনীতির যদি অবসান হতো এবং ‘না’ বলার সংস্কৃতি যদি দূর হতো, তাহলে আরও বহুদূর এগিয়ে যেতে পারতাম।”

বাংলাদেশকে মানবিক রাষ্ট্র হিসেবে গঠনের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আজ বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণে দেশ অনেক দূর এগিয়ে গেছে। আমাদের উদ্দেশ্য ২০৪১ সাল নাগাদ রাষ্ট্রকে একটি উন্নত দেশে পরিণত করা। একই সঙ্গে আমাদের লক্ষ্য একটি উন্নত জাতি গঠন করা। শুধু উন্নত রাষ্ট্র গঠন করলে হবে না, এর পাশাপাশি একটি মানবিক রাষ্ট্র গঠন করতে হবে। আমরা অন্যদের অন্ধ অনুকরণে উন্নত রাষ্ট্র হতে চাই না।’

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু তার সাড়ে তিন বছরের শাসনামলে অনেক পদক্ষেপ নিয়েছেন, যেগুলো আজকে মূল ভিত্তি টিকে থাকার, এগিয়ে যাওয়ার। বঙ্গবন্ধুর ভাষণের মধ্যে সামনে এগিয়ে যাওয়ার, রাষ্ট্রকে উন্নত করার এবং উন্নত জাতি গঠন করার সমস্ত উপকরণ আছে।’ এ জন্য বঙ্গবন্ধুর ভাষণ নিয়ে আলোচনা, বিশ্লেষণ ও গবেষণার প্রয়োজন আছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

আলোচনায় অংশ নিয়ে সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নূরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, ‘বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের রোল মডেল। খাদ্য, বিদ্যুৎ, আবাসন, শিক্ষা, স্বাস্থ্য—সবক্ষেত্রে সফলতা এসেছে। আমাদের দেশকে কেউ দমিয়ে রাখতে পারবে না। বাংলাদেশ এখন খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। আমরা এখন অনেক দেশকে রিলিফ হিসেবে খাদ্য দিতে পারি।’

তিনি বলেন, ‘মানুষের হাতেই সব ইতিহাস ও সম্পদের সৃষ্টি। আর তাই বঙ্গবন্ধু মানুষকে উদ্বুদ্ধ করতেন। বাংলাদেশ বহুদূর এগিয়ে গেছে। আমরা যদি ঐক্যবদ্ধ থাকি তাহলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ আরও এগিয়ে যাবে। নতুন প্রজন্মকে শিক্ষার পাশাপাশি ভালো মানুষ হিসেবে গড়ে তোলাই এখন আমাদের প্রধান দায়িত্ব।’

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির সভাপতি এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জাপানিজ স্টাডিজ বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. আবুল বারকাত।

অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের অনেক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।