বিচার ছাড়াই ট্রাম্প চিরতরে অভিশংসিত, বললেন পেলোসি

প্রকাশিত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ক্ষমতার অপব্যবহার ইস্যুতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিশংসনের বিষয়ে শিগগিরই রিপাবলিকান নিয়ন্ত্রিত সিনেটে বিচার শুরু হবে। ইতোমধ্যে অভিশংসন প্রস্তাব উচ্চকক্ষে পাঠানো হয়েছে।

শনিবার এক সাক্ষাৎকারে মার্কিন কংগ্রেসের প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি বলেছেন, সিনেটের অভিশংসনের বিচারের ফলাফল বিবেচনা ছাড়াই প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প চিরতরে অভিশংসিত। কারণ ট্রাম্পের অভিশংসনের জন্য আমাদের কাছে যথেষ্ট তথ্য রয়েছে।

পেলোসি আরও বলেন, আমি তাকে বলব, তিনি চিরতরে অভিশংসিত। কারণ, ট্রাম্প তার ব্যক্তিগত ও রাজনৈতিক ফায়দা লুটতে একটি দেশকে প্রভাবিত করতে প্রেসিডেন্ট অফিসকে ব্যবহার করেছেন। আর এটা করতে গিয়ে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা বিঘ্নিত করেছেন। দেশের সংবিধান রক্ষার শপথে তিনি অসৎ ছিলেন।

ক্ষমতার অপব্যবহার ও কংগ্রেসের কাজে বাধা সৃষ্টির অভিযোগে ট্রাম্পকে অভিশংসনের প্রস্তাব কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদে সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোটে পাস হয় গতবছর ডিসেম্বরে। এর মধ্য দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে ট্রাম্প তৃতীয় প্রেসিডেন্ট হিসাবে গুরুতর অভিযোগে হাউজে অভিশংসিত হন। এখন তিনি প্রেসিডেন্ট পদে থাকতে পারবেন কিনা, সেই সিদ্ধান্ত হবে কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সিনেটে।

হাউজ স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি এতদিন অভিশংসন প্রস্তাবটি সিনেটে পাঠানোর পদক্ষেপ নেননি। কারণ, তিনি চেয়েছিলেন বিচারের নিয়মবিধি এবং প্রক্রিয়ার রূপরেখা ঠিক হওয়ার পরই তা সিনেটে পাঠাতে। তাই এ পদক্ষেপটি নিতে কয়েকসপ্তাহ লেগে গেল। সিনেটে ট্রাম্প বিচারের মুখোমুখি হওয়ার পর শুনানি শেষে তার অপসারণের পক্ষে দুই তৃতীয়াংশ ভোট পড়লে প্রেসিডেন্ট পদ ছাড়তে হবে তাকে। তবে রিপাবলিকান নিয়ন্ত্রিত সিনেটে সে সম্ভাবনা নেই বললেই চলে।