বিভাগ - সারাদেশ

বিজয়ের মাসে মুক্তিযোদ্ধার বাড়িতে হামলা-ভাঙচুর !

প্রকাশিত

শরীয়তপুর প্রতিনিধি: বিজয়ের মাসে শরীয়তপুরের জাজিরার শফিকুল আলম নামক এক মুক্তিযোদ্ধার বসতবাড়িতে হামলা-ভাঙচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এব্যাপারে মুক্তিযোদ্ধার ছোট ভাই তকিবুল হাসান ছান্নু জাজিরা থানা একটি অভিযোগ দিয়েছে।

জানা যায়, শরীয়তপুর জেলার জাজিরা পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ডের খোসাল শিকদার কান্দি গ্রামের বাসিন্দা মাস্টার আব্দুস শুকুর মিয়া’র ছেলে ও বীর মুক্তিযোদ্ধা শফিকুল আলমদের বাড়িতে বিজয়ের মাসে গত বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে স্থানীয় প্রভাবশালী ইদ্রিস মৃধা ও তার ছেলে রানা মৃধার নেতৃত্বে ১০/১৫ জন লোক অতর্কিতভাবে হামলা করে। হামলাকারীরা ওই মুক্তিযোদ্ধার বাড়ির সীমানা প্রাচীর ভেঙে ফেলে বসতঘর ও বাড়ি দখলের চেষ্টা করে। পরে ওই মুক্তিযোদ্ধার ছোট ভাই তকিবুল হাসান ছান্নু জাজিরা থানায় অভিযোগ করায় পুলিশ আসলে হামলাকারীরা দ্রুত পালিয়ে যায়। এরআগেও একইদিনে জাজিরা বাজারে ছান্নুর ওপর হামলা করেছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

এ ব্যাপারে মুক্তিযোদ্ধা শফিকুল আলমের আরেক ভাই সাজেদুল হাসান নান্নু বলেন, আমার প্রয়াত বাবা মাস্টার আবদস শুকুর মিয়া বড়কান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, জাজিরা মোহর আলী উচ্চ বিদ্যালয় ও নড়িয়ার বিহারী লাল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ছিলেন। আমার বড় ভাই বীর মুক্তিযোদ্ধা শফিকুল আলম সহ আমি ও আরেক ভাই রাশেদুল হাসান মান্নু জীবন-জীবিকার তাগিদে জাজিরার বাইরে অবস্থান করি। বাড়িতে মা সুফিয়া বেগম ও ছোট ভাই ছান্নুর স্ত্রী পরিজন নিয়ে বসবাস করে। এই সুযোগে বিজয়ের মাসে গত বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে স্থানীয় প্রভাবশালী ইদ্রিস মৃধা ও তার ছেলে রানা মৃধার নেতৃত্বে ১০/১৫ জন লোক আমাদের বাড়িতে অতর্কিতভাবে হামলা করে বাড়ির সীমানা প্রাচীর ভেঙে ফেলে বসতঘর ও বাড়ি দখলের চেষ্টা করে। পরে ছোট ভাই ছান্নু জাজিরা থানায় অভিযোগ করায় পুলিশ আসলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। এরআগেও একইদিনে জাজিরা বাজারে ছান্নুর ওপর হামলা করে তারা। আমরা ওই হামলাকারীদের বিচার চাই।

এ ব্যাপার হামলার শিকার তকিবুল হাসান ছান্নু বলেন, প্রভাবশালী ইদ্রিস মৃধা ও তার ছেলে রানার ভয়ে ঠিকভাবে চলা ফেরা করতে পারি না। বাজারে গেলে হামলা করে। বাড়ি দখলের জন্য বাড়িঘরে হামলা করে। নানাভাবে জীবননাশের হুমকি-ধমকি দেয়। আমরা যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে এর বিচার চাই। এব্যাপারে অভিযুক্ত ইদ্রিস মৃধা ও রানা মৃধার বক্তব্যের জন্য বারবার চেষ্টা করেও তাদেরকে পাওয়া যায়নি।

এ ব্যাপারে জাজিরা থানার ওসি আজহারুল ইসলাম বলেন, ওখানকার দুই পরিবারের মধ্যে বিরোধ রয়েছে। বাড়ির সীমানা প্রাচীর ভেঙে ফেলার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিদর্শন করেছে। পরে প্রতিপক্ষ সীমানা প্রাচীর মেরামত করে দিয়েছে।