বুড়িগঙ্গায় লঞ্চ দুর্ঘটনায় অনাহূত মৃত্যুতে হতবাক সাকিব-মুশফিক

প্রকাশিত

ক্রীড়া ডেস্ক: করোনাভাইরাসের প্রকোপে বিশ্বে মৃত্যুর মিছিল লেগেছে। বাংলাদেশেও এ সংক্রমণের সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে। এমন এক অবস্থার মধ্যে সোমবার বুড়িগঙ্গায় লঞ্চ ডুবির ঘটনা ঘটেছে। শেষ খবর অনুযায়ী সেখানে ৩২ জনের লাশ উদ্ধার হয়েছে। ভয়াবহ এই বিপর্যয় আর অনাহূত মৃত্যুতে হতবাক সাকিব আল হাসান ও মুশফিকুর রহিম। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এ নিয়ে এ দুই ক্রিকেটার দিয়েছেন স্ট্যাটাস।

সোমবার সকালে সদরঘাটের কাছে ফরাশগঞ্জ ঘাট এলাকায় আরেক লঞ্চের ধাক্কায় অর্ধশতাধিক যাত্রী মর্নিং বার্ড নামের এক লঞ্চ ডুবে যায়। সেখানে মৃত্যুর মিছিল দেখে হতবাক হয়েছেন সাকিব। এমন ঘটনায় নিজেকে কোনোভাবেই সান্ত্বনা দিতে পারছেন না সাবেক বিশ্ব সেরা অলরাউন্ডার, ‘প্রতিটি শোক সংবাদ হতাশার, বেদনার। গত চারমাস ধরে করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রতিদিনই মানুষ চলে যাচ্ছে না ফেরার দেশে। এর মধ্যে আজ আবার বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে লঞ্চ ডুবে এখন পর্যন্ত ৩২ জন মানুষের প্রাণহানী এবং এখন পর্যন্ত বেশ কিছু যাত্রী নিঁখোজ রয়েছে। তাদের স্বজনদের আহাজারিতে ভারী হয়ে উঠছে চারপাশ। সত্যি বলতে আমি কোনো ভাবেই নিজেকে সান্ত্বনা দিতে পারছি না।’

লঞ্চ দূর্ঘটনাকে হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে তুলনা করেছেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। যেখানে করোনা ভাইরাসের মতো এক অণুজীবের সঙ্গে লড়াইয়ে সর্বস্ব দিয়ে চেষ্টা করেও জীবন বাঁচানো যাচ্ছে না, সেখানে এমন অনাহূত মৃত্যুর কোনো ব্যাখ্যা খুঁজে পাচ্ছেন না সাকিব, ‘পুরো পৃথিবীর এই ভয়ংকার ক্রান্তিকালে এমন দূর্ঘটনার কোন সান্ত্বনা বা ব্যাখ্যা আমার জানা নেই। ভবিষ্যতে এমন অনাকাঙ্খিত দূর্ঘটনা আর একটি যেন না হয় এমন বাংলাদেশ দেখবার প্রত্যাশা করি। করোনাসহ সব সকল দূর্যোগ কেটে যাবে ইনশাআল্লাহ। মাত্র ৩০ সেকেন্ড দূরের পথে থেকেও, সারাজীবনের জন্য পরপারে পাড়ি জমানো সকল আত্মার প্রতি শান্তি ও সৃষ্টিকর্তার নিকট জান্নাত কামনা করছি।’

এদিকে মুশফিকুর রহিমও লঞ্চ দূর্ঘটনায় হতবাক ও শোকাহত হয়েছেন। ব্যাপারটি তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সবার সঙ্গে শেয়ারও করেছেন। সেখানে তিনি আবার জানিয়েছেন, এ বছরটি মোটেও ভালো নয় এখনও, ‘বুড়িগঙ্গায় লঞ্চ ডুবে নিরীহ মানুষের প্রাণ হারানোর সংবাদ পেয়ে হতবাক ও শোকাহত আমি। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিওন। এখণ পর্যন্ত বছরটি আমাদের জন্য খুব ভালো নয়।’

করোনার কারণে গত মার্চ থেকে মাঠের ক্রিকেট বন্ধ থাকায় মুশফিকুর রহিম রয়েছেন ঘরবন্দী। সেখানে অবশ্য বসে নেই তিনি। নিয়োমিত ফিটনেস ধরে রাখতে কাজ করছেন। এদিকে আইসিসি থেকে এক বছরের নিষেধাজ্ঞায় থাকা সাকিব আল হাসান এ মুহূর্তে রয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রে। সেখানে পরিবারের সঙ্গে সময়গুলো কাটাচ্ছেন তিনি। এ তারকা অলরাউন্ডারও চাইছেন দ্রুত সব ঠিক হয়ে যাক। ফের মাঠের ক্রিকেট লড়াই শুরু হোক।