বিভাগ - খেলাধুলা

ব্যাংকার্স চ্যাম্পিয়নশিপ ট্রফির জমকালো উদ্বোধন

প্রকাশিত

নিজস্ব প্রতিবেদক: প্রথমবারের মতো শুরু হওয়া বসুন্ধরা গ্রুপ ব্যাংকার্স চ্যাম্পিয়নশিপ ট্রফির জমকালো উদ্বোধন করেন দেশের শীর্ষ শিল্পোদ্যোক্তা পরিবার বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীর। সোমবার রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে এক বর্ণিল আয়োজনের মধ্য দিয়ে এই টুর্নামেন্টের জার্সি ও ট্রফির মোড়ক উন্মোচন করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির। বিশেষ অতিথি ছিলেন অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশের (এবিবি) চেয়ারম্যান আলী রেজা ইফতেখার। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান (১) সাফিয়াত সোবহান সানভীর। টুর্নামেন্টের আয়োজক প্রতিষ্ঠান এইস-এর প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও ইশতিয়াক সাদেকও বক্তব্য দেন। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সাবেক খেলোয়াড় মোহাম্মদ রফিককে আজীবন সম্মাননা জানানো হয়। রফিককে উত্তরীয় পরিয়ে দেন গভর্নর ফজলে কবির।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির বলেন, ‘বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যাংকার্স চ্যাম্পিয়ন ট্রফির আয়োজন অসাধারণ উদ্যোগ। আমি অংশগ্রহণকারীদের শুভকামনা জানাচ্ছি। আশা করছি এই টুর্নামেন্ট দারুণভাবে উপভোগ করবেন।’

গভর্নর আরও বলেন, ‘ভিন্নধর্মী এই ক্রিকেট টুর্নামেন্টের আয়োজনকারী প্রতিষ্ঠানকে ধন্যবাদ। মানুষের দৈনন্দিন জীবনে বিনোদন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। পর্যাপ্ত বিনোদনের অভাব উৎপাদনশীলতা কমিয়ে দেয়। আশা করছি এই আয়োজনের মাধ্যমে ব্যাংক এবং ক্রীড়াজগতের মধ্যে একটি চমৎকার বন্ধন তৈরি হবে।’

বিশেষ অতিথি অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশের (এবিবি) চেয়ারম্যান ও ইস্টার্ন ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলী রেজা ইফতেখার বলেন, এ ধরনের টুর্নামেন্ট আয়োজন অত্যন্ত ইতিবাচক ও সময়োপযোগী। এই টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণকারী ক্রিকেটার এবং ব্যাংকারদের মধ্যে একটি বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে উঠবে। একই সঙ্গে ব্যাংকারদের খেলাধুলার জগতে সম্পৃক্ত হওয়ার সুযোগ তৈরি হলো।

টুর্নামেন্ট আয়োজক প্রতিষ্ঠান এইস-এর প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ইশতিয়াক সাদেক বলেন, দেশের ব্যাংকারদের জন্য এমন একটি আয়োজন করতে পেরে আমরা খুবই আনন্দিত। দেশের দুই গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গন ব্যাংক এবং ক্রীড়াজগতের মধ্যে একটি মজবুত বন্ধন তৈরি করাই আমাদের মূল লক্ষ্য। আমাদের দেশের গর্ব ক্রিকেট খেলোয়াড়রা খেলা থেকে অবসরে যাওয়ার পর তাদের জীবনের বাকি সময়টুকু যেন ব্যাংকিং খাতে ব্যয় করে দেশের অর্থনীতিতে অবদান রাখার সুযোগ পান এটাই আমাদের প্রত্যাশা। সে লক্ষ্যে ভবিষ্যতে এ ধরনের আয়োজন করার প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকসহ ১৬টি ব্যাংক চারটি গ্রুপে এই টুর্নামেন্টে খেলবে।

‘এ’ গ্রুপ : প্রাইম ব্যাংক, এবি ব্যাংক, সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার অ্যান্ড কমার্স ব্যাংক ও মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেড (এমটিবি)।

‘বি’ গ্রুপ : এনআরবি ব্যাংক, ইসলামী ব্যাংক, স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক ও ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক।

‘সি’ গ্রুপ : ইস্টার্ন ব্যাংক, এইচএসবিসি ব্যাংক, ব্র্যাক ব্যাংক ও ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক লিমিটেড (ইউসিবিএল)।

‘ডি’ গ্রুপ : দ্য সিটি ব্যাংক, ব্যাংক এশিয়া, ঢাকা ব্যাংক ও বাংলাদেশ ব্যাংক।

অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারী ব্যাংকগুলোর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তারাও উপস্থিত ছিলেন।