ব্রিটিশ কাউন্সিল ও বিডিওএসএন-এর সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত

প্রকাশিত

সারাদেশের পাবলিক লাইব্রেরি সমূহে চলতি বছরের বাংলাদেশ রোবট অলিম্পিয়াড, ওয়ার্ল্ড রোবট অলিম্পিয়াড বাংলাদেশ এবং ইন্টারন্যাশনাল জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের একটিভেশন ও কর্মশালা সমূহ অনুষ্ঠিত হবে। আর এই আয়োজনের মাধ্যমে পাবলিক লাইব্রেরিসমূহ হয়ে উঠবে নতুন জ্ঞান বিজ্ঞানের কেন্দ্র। আজ ঢাকার বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রে বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক(বিডিওএসএন) ও ব্রিটিশ কাউন্সিলের লাইব্রেরি আনলিমিটেড প্রকল্পের মধ্যে এ বিষয়ে একটি সমঝোতা স্বাক্ষর হয়েছে। লাইব্রেরি আনলিমিটেডের প্রকল্প পরিচালক কার্টসি ক্রেফোর্ড এবং বিডিওএসএনের সহ-সভাপতি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রোবটিক্স এন্ড মেকাট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. লাফিফা জামাল নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে সমঝোতায় স্বাক্ষর করেন।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব এবং গণগ্রন্থাগার অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোঃ আব্দুল মান্নান ইলিয়াস পাবলিক লাইব্রেরির পক্ষ থেকে সকল ধরণের সহায়তার আশ্বাস প্রদান করে বলেন এই আয়োজনের ফলে তরুণ ও নতুন প্রজন্ম আবারও লাইব্রেরীমুখী হয়ে উঠবে। সংশ্লিষ্ট স্বেচ্ছাসেবীদের স্বেচ্ছাব্রতের প্রশসংসা করে তিনি নিজেও স্বেচ্ছাসেবা কার্যক্রমে সশরীরে অংশগ্রহণ করবেন বলে জানান। অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি ব্রিটিশ কাউন্সিল বাংলাদেশের ডেপুটি ডিরেক্টর এন্ড্রু নিউটন আশা করেন ক্রিকেট, রোবট অলিম্পিয়াডের সাফল্যের মতো বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা আগামীতে অন্যান্য আয়োজনেও সাফল্য লাভ করবে। অধ্যাপক ড. লাফিফা জামাল মনে করেন এর ফলে সেচ্ছাসেবামূলক কার্যক্রম ঢাকার বাইরে করা সহজতর হবে।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, বিডিওএসএন সারা দেশের শিক্ষার্থীদেরকে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মনস্ক করার জন্য রোবট অলিম্পিয়াড, জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াড,প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতাসহ নানা আয়োজন করে থাকে। আবার সারা দেশের পাবলিক লাইব্রেরীকে আরও বেশি জনপ্রিয় করার জন্য ও গুণগত সেবা বৃদ্ধির লক্ষ্যে বিভিন্ন কাজ করছে ব্রিটিশ কাউন্সিলের লাইব্রেরিস আনলিমিটেড প্রজেক্ট। গত দুইবছর ধরে বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক ও ব্রিটিশ কাউন্সিল একসঙ্গে কাজ করছে। সকল জেলা লাইব্রেরিতে কম্পিউটার ব্যবহার করে শিক্ষার্থীরা প্রোগ্রামিং শেখায় ও কানো কম্পিউটিং এবং আইওটি ভিত্তিক প্রশিক্ষণ দেয়। এখন পর্যন্ত প্রতিষ্ঠান দুটি ৩৩ টি জেলায় ৩৫ টি ওয়ার্কশপের মাধ্যমে ৩৮১৮ জন শিক্ষার্থীকে হাতেকলমে প্রশিক্ষণ দিয়েছে। ২০২০ সালের মধ্যে দেশের ৬৪ জেলায় এসকল কর্মসূচি ছড়িয়ে দেওয়া হবে। এ বিষয়ে একটি উপস্থাপনা প্রদান করেন লাইব্রেরি আনলিমিটেড প্রকল্পের কারিগরী কর্মকর্তা টিম গ্রিন ও আইসিটি সমন্বয়ক মিশাল ইসলাম।

বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক বিশ্ব রোবট অলিম্পিয়াড,আন্তর্জাতিক রোবট অলিম্পিয়াডের বাংলাদেশ পর্ব আয়োজন করে। বাংলাদেশ দল গঠন করে আন্তর্জাতিক অলিম্পিয়াডে দল পাঠায়। পাবলিক লাইব্রেরির সহযোগিতায় এখন থেকে এসকল আয়োজনে একত্রে কাজ করবে বিডিওএসএন ও ব্রিটিশ কাউন্সিল। এছাড়া আন্তর্জাতিক জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডে বাংলাদেশ থেকে দল গঠন করে বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতি। এখন থেকে আঞ্চলিক অলিম্পিয়াড আয়োজন ও অ্যাক্টিভিশন প্রোগ্রাম যৌথভাবে আয়োজন করবে তারা।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ফ্রিডম ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক সাজ্জাদুর রহমান চৌধুরী, কম্পিউটার সার্ভিসেস লিমিটেডের সিইও মমলুক সাবির আহমেদ, প্রথম আলোর যুব কার্যক্রমের প্রধান মুনির হাসান, রোবট অলিম্পিয়াডের বাংলাদেশের সমন্বয়কারী রেদওয়ান ফেরদৌস, পাওয়ার স্টেশনের সিইও কাব্য আহমেদ প্রমূখ।