বিভাগ - আইন-আদালত

ভার্চুয়াল কোর্টে প্রথম দিনেই ৩৮ আসামির জামিন

প্রকাশিত

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়েছে করোনা আতঙ্ক। সেই আতঙ্ক বিরাজ করছে বাংলাদেশেও। করোনার কারণে সরকার ইতোমধ্যে ষষ্ঠ দফা ছুটি বাড়িয়ে করেছে ১৬ মে পর্যন্ত। বন্ধ রয়েছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, অফিস, গণপরিবহন। তারই রেশ ধরে দেশব্যাপী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে আদালত পাড়াও রয়েছে বন্ধ। আদালতে তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার অধ্যাদেশ-২০২০-এর খসড়া নীতিগত ও চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়ে গত ৯ মে অধ্যাদেশ জারি করেন রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদ। পর দিন দেশের সব অধস্তন (নিম্ন) আদালতে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে শুধু জামিন শুনানির নির্দেশনা জারি করেন সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন।

এর পরিপ্রেক্ষিতে সারাদেশে ভার্চুয়াল আদালত গঠন করা হয়। ভার্চুয়াল আদালতে মঙ্গলবার (১২ মে) ঢাকায় প্রথম হাজতি আসামিদের জামিন শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। প্রথম দিনে ঢাকার পাঁচটি ভার্চুয়াল আতালতে ৩৮ জন আসামির জামিন আবেদন মঞ্জুর করা হয়েছে। জামিন দেয়া অধিকাংশ মামলা মাদক ও চুরির অভিযোগে করা। আসামিরা দীর্ঘদিন হাজতে থাকায় তাদের জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন আদালত।

এ বিষয় ঢাকা মহানগর পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) আব্দুল্লাহ আবু বলেন, আজ ভার্চুয়াল কোর্টে ঢাকায় প্রথম জামিন শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। অপরাধ বিবেচনায় আসামিদের জামিন আবেদন মঞ্জুর করেছেন আদালত। মাদক মামলায় যাদের কাছ থেকে কম মাদক উদ্ধার হয়েছে, তাদের জামিন দেয়া হয়েছে। আর দীর্ঘদিন ধরে আসামিরা হাজতে থাকায় তাদের জামিন আবেদন মঞ্জুর করা হয়েছে।

একটি কোর্টের দায়িত্বে আছেন ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশে। আজ প্রথম দিন এই আদালতে ৯ টি মামলায় ৯ আসামির জামিন আবেদন করা হয়। এর মধ্যে চারটি মামলায় শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। বিচারক চারজনের জামিন মঞ্জুর করেন। মামলাগুলো অধিকাংশ মাদকের। আর বাকি ৫ টি মামলার শুনানির জন্য পরবর্তীতে তারিখ ধার্য করেন আদালত।

এই কোর্টের সহকারী পেশকার আনিসুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, গতকাল (১১ মে) থেকে মামলার জামিন শুনানি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। প্রযুক্তিগত কারণে কালকে শুনানি অনুষ্ঠিত হয়নি। আজ প্রথম শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। প্রথম দিন ৯টি মামলার মধ্যে চারটি মামলায় জামিন শুনানি হয়। এর মধ্যে চার মামলার চার আসামির জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন আদালত।

সিএমএম আদালত
ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম (সিএমএম) আদালতে চারটি ভার্চুয়াল কোর্টের মাধ্যমে হাজতি আসামিদের জামিন শুনানি অনুষ্ঠিত হয়েছে। এদিন চারটি ভার্চুয়াল কোর্টে ৩২ জন আসামি জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন।

ভার্চুয়াল কোর্ট-১
এই কোর্টে বিচারক হিসেবে দায়িত্বে আছেন ঢাকা মহানগর হাকিম সরাফুজ্জামান আনছারী। আজ প্রথম দিন এ কোর্টে ৬ মামলায় ১১ আসামির জামিন আবেদন করা হয়। বিচারক ৯ আসামির আবেদন মঞ্জুর করেন।

এ কোর্টের সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্বে আছেন পুলিশের উপ-পরিদর্শক মাহমুদুল হাসান। তিনি বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আজ ৬ মামলায় ১১ আসামির জামিন শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। এর মধ্যে এক মামলায় দুজন আইনজীবী থাকায় বিচারক তা নিষ্পত্তির জন্য ঢাকা বারে পাঠিয়ে দেন। অপর একজনের আইনজীবী জামিনের আবেদন প্রত্যাহার করেন। বাকি ৯ জনের জামিন মঞ্জুর করেন আদালত।

এ কোর্টে উত্তরা পূর্ব, উত্তরা পশ্চিম, তুরাগ, দক্ষিণখান, উত্তরখান, বিমানবন্দর, গুলশান, বনানী, বাড্ডা, ভাটারা, খিলক্ষেত ও ক্যান্টনমেন্ট থানার হাজতিদের জামিন আবেদন করা যাবে। আবেদন করতে ইমেইল- cmmdhaka.vc1@gmail.com, ই-ফাইলিং mycourt.judiciary.org.bd অথবা ০১৮২৪৪২৭২১৭ যোগাযোগ করতে হবে।

ভার্চুয়াল কোর্ট-২
এই কোর্টে বিচারক হিসেবে দায়িত্বে আছেন ঢাকা মহানগর হাকিম সাদবীর ইয়াসির আহসান চৌধুরী। আজ এ কোর্টে তিন মামলায় ১৪ আসামির জামিন আবেদন করা হয়। বিচারক ১৪ জনের জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন।

এ কোর্টের সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্বে আছেন পুলিশের উপ-পরিদর্শক হেলাল উদ্দিন। তিনি বলেন, আজ প্রথম দিন বংশালের দুই মামলা ও হাজারীবাগের এক মামলায় ১৪ আসামির জামিনের আবেদন করা হয়। মামলাগুলো চুরি ও মাদকের অভিযোগে করা হয়। বিচারক ১৪ আসামিরই জামিন মঞ্জুর করেন।

এই কোর্টে রমনা, শাহবাগ, কলাবাগান, ধানমন্ডি, নিউমার্কেট, হাজারিবাগ, লালবাগ, চকবাজার, কামরাঙ্গীরচর, কোতোয়ালী, বংশাল ও সুত্রাপুর থানার হাজতিদের জামিন আবেদন করা যাবে। আবেদন করতে ইমেইল- cmmdhaka.vc2@gmail.com, ই-ফাইলিং mycourt.judiciary.org.bd অথবা ০১৮২৪৪২৭২১৭ এ যোগাযোগ করতে হবে।

ভার্চুয়াল কোর্ট-৩
এই কোর্টে বিচারক হিসেবে দায়িত্বে আছেন ঢাকা মহানগর হাকিম দেবদাস চন্দ্র অধিকারী। আজ প্রথম দিন এ কোর্টে চার মামলায় ৬ আসামির জামিন শুনানি হয়। বিচারক ৬ আসামির জামিন মঞ্জুর করেন।

এ কোর্টের সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্বে থাকা পুলিশের উপ-পরিদর্শক সাইফুল ইসলাম বলেন, আজ প্রথম দিন খিলগাঁও, ডেমরা ও যাত্রাবাড়ীর দুই মামলায় ৬ আসামির জামিন শুনানি হয়। বিচারক ৬ জনেরই জামিন মঞ্জুর করেন। মামলাগুলো করা হয় মাদক ও চুরির অভিযোগে।

এ কোর্টে মতিঝিল, পল্টন, শাহজাহানপুর, খিলগাঁও, রামপুরা, সবুজবাগ, মুগদা, ডেমরা, যাত্রাবাড়ী, কদমতলী, শ্যামপুর, ওয়ারী ও গেন্ডারিয়া থানার হাজতিদের জামিনের আবেদন করা যাবে। আবেদন করতে ইমেইল- cmmdhaka.vc3@gmail.com, ই-ফাইলিং mycourt.judiciary.org.bd অথবা ০১৮২৪৪২৭২১৭ এ ফোন করতে হবে।

ভার্চুয়াল কোর্ট-৪
এই কোর্টে বিচারক হিসেবে দায়েত্বে আছেন ঢাকা মহানগর হাকিম রাজেশ চৌধুরী। আজ প্রথম দিন এ কোর্টে ৫ মামলায় ৫ আসামির জামিন শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। বিচারক শুনানি শেষে ৫ জনের জামিন মঞ্জুর করেন।

এ কোর্টে সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা পুলিশের উপ-পরিদর্শক প্রলয় কুমার শাহা বলেন, আজ দারুসসালাম, হাতিরঝিল ও মিরপুরের তিন মামলায় মোট ৫ আসামির জামিন শুনানি হয়। বিচারক ৫ জনেরই জামিন মঞ্জুর করেন।

এ কোর্টে তেজগাঁও, তেজগাঁও শিল্প, হাতিরঝিল, শেরে বাংলানগর, মোহাম্মদপুর, আদাবর, মিরপুর, দারুসসালাম, শাহআলী, পল্লবী, রূপনগর, কাফরুল ও ভাষাণটেক থানার হাজতি আসামিদের জামিনের আবেদন করা যাবে। আবেদন করা যাবে ইমেইল- cmmdhaka.vc4@gmail.com, ই-ফাইলিং mycourt.judiciary.org.bd অথবা মোবাইল : ০১৮২৪৪২৭২১৭ নম্বরে কল দিয়ে।