ভাষা বীর রওশন আরা বাচ্চু আমাদের জাতীয় অহংকার: স্মরণসভায় নেতৃবৃন্দ

প্রকাশিত

এওয়ান নিউজ: ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনের বীর সেনানী, ভাষা সৈনিক রওশন আরা বাচ্চু আমাদের জাতীয় অহংকার ও প্রেরনার উৎস বলে মন্তব্য করে বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া বলেন, মানুষের অধিকার আদায়ের সংগ্রামে তার জীবন আমাদের প্রেরনা যোগাবে।

তিনি বলেন, যতদিন বাংলাদেশ থাকবে, বাংলাভাষা থাকবে ততদিন বেঁচে থাকবেন ভাষা সৈনিক রওশন আরা বাচ্চু। মহান ভাষা আন্দোলনে তার অবদান সমগ্র জাতি শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করবে। দু:খজনক হলেও সত্য আমরা এই বীর সেনানীকে যথাযথ মর্যাদা প্রদান করতে পারি নাই।

সোমবার (৯ডিসেম্বর) নয়াপল্টনের যাদু মিয়া মিলনায়তনে ভাষা সৈনিক রওশন আরা বাচ্চু’র মত্যুতে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ আয়োজিত স্মরণসভা ও দোয়া অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ভাষা আন্দোলন স্মরণে একুশে পদক প্রবর্তিত হলেও এখনও অনেক ভাষা সৈনিক সেই পদক হতে বঞ্চিত। সরকারের উচিত এই বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করা। ভাষা সৈনিকরা যদি জীবিত থাকতেই এই পদক না পায় তাহলে তাদের মনে কষ্টটা থেকেই যাবে। মরনের পর নয়, জীবিত থাকতেই সকল ভাষা সৈনিকদের সম্মান জানানো রাষ্ট্রের দায়িত্ব। এ দায়িত্বে রাষ্ট্র ও সরকারের অবহেলা গ্রহনযোগ্য নয়।

তিনি ভাষা সৈনিক রওশন আরা বাচ্চুকে মরনোত্তর একুশে পদক প্রদানের আহ্বান জানিয়ে বলেন, যাদের কারনে শহীদ মিনার তাদের শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানানোর জন্য সরকারকেই ব্যবস্থা গ্রহন করতে হবে। ভাষা সৈনিকদের লাশ শহীদ মিনারে যাবে না, আর তাদের ত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত শহীদ মিনারকে নিয়ে কেউ কেউ বাণিজ্য করবে এটা হতে পারে না।

বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া’র সভাপতিত্বে ও ঢাকা মহানগর সভাপতি মো. শহীদুননবী ডাবলু’র সঞ্চালানায় আলোচনায় অংশগ্রহন করেন জাতীয় গণতান্ত্রিক লীগ সভাপতি এম এ জলিল, এনডিপি মহাসচিব মো. মঞ্জুর হোসেন ঈসা, সোনার বাংলার পার্টি সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ হারুন-অর-রশিদ, ঢাকা মহানগর আওয়মী লীগ নেতা আ স ম মোস্তফা কামাল, ন্যাপ ভাইস চেয়ারম্যান স্বপন কুমার সাহা, যুগ্ম মহাসচিব এহসানুল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. কামাল ভুইয়া, নির্বাহী সদস্য একলাছুল হক, মহানগর মহানগর শ্রম সম্পাদক হাবিবুর রহমান, মিজানুর রহমান প্রমুখ।