বিভাগ - সারাদেশ

মোড়েলগঞ্জ আওয়ামীলীগের সভাপতি মিলন-সম্পাদক এমদাদুল হক

প্রকাশিত

শেখ সাইফুল ইসলাম কবির,বাগেরহাট:বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৬৮ হাজার গ্রামবাংলার মানুষকে অভাবনীয় উন্নয়ন উপহার দিয়েছে।

গ্রামীন অবকাঠামো উন্নয়নে ৬৮ হাজার গ্রামকে করেছে আলোকিত। স্বাস্থ্য সেবা নিচ্ছিত করতে কমিউনিটি ক্লিনিক স্থাপন করেছে প্রতিটি গ্রামে। বছরের শুরুতেই শিক্ষার্থির হাতে তুলে দিয়েছেন বই। এখন আর বাংলার মানুষ বস্ত্রহীন থাকছেনা। তিনি আরো বলেন, দলে দুনীতিবাজ, চান্দাবাজ ধান্দাবাজের স্থান হবে না।

বিএনপি জামায়াত অশুভ পরাজিত শক্তি মাথাচড়া দিয়ে উঠতে দেওয়া যাবেনা । রোববার বিকেলে উপজেলা আওয়ামীলীগের আয়োজনে পৌর পার্কে আয়োজিত এ ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের উদ্ধোধন করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বাগেরহাট-৪, সংসদ সদস্য ডা. মোজাম্মেল হোসেন।

সভায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য এ্যাড. আমিরুল আলম মিলনের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যান বিষয়ক সম্পাদক সুজীত রায় নন্দী, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য এ্যাড. রিয়াজুল কবির কাওসার, প্রধান বক্তা ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. কামরুজ্জামান টুকু। জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাড. শাহ-ই আলম বাচ্চু, পৌর মেয়র এ্যাড. মনিরুল হক তালুকদার।

সভায় প্রতিবেদন পাঠ করেন সদ্য বিদায়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্পাদক এম এমদাদুল হক। সভায় দ্বিতীয় অধিবেশনে কাউন্সিলরদের প্রস্তাব ও সমর্থনে সভাপতি পদে এ্যাড. আমিরুল আলম মিলন ও লিয়াকত আলী খানের নাম প্রস্তাব করেন।

অনুরুপ সাধারণ সম্পাদক পদে ৪ জনের নাম উঠে আসে। এরা হলেন পৌর মেয়র এ্যাড. মনিরুল হক তালুকদার, বিদায়ী সম্পাদক এম এমদাদুল হক, সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাহমুদ আলী ও জেলা পরিষদের সদস্য শাহাবুদ্দিন তালুকদারের নাম প্রস্তাব করেন।

সম্মেলনের ২য় পর্যায়েদীর্ঘ ১৬ বছর পরে অনুষ্ঠিত মোরেলগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মলেন শেষ হয়েছে। রবিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টায় সম্মেলনের শেষে আলোচনা সাপেক্ষে সাবেক কমিটি বহাল রাখার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হয়। অর্থাৎ, অ্যাড. আমিরুল আলম মিলন ও এম এমদাদুল হক পরবর্তী ৩ বছরের জন্য আবারও সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক থাকছেন।

সম্মেলনের দ্বিতীয়ার্ধে ১৬ বছরের পুরানো কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করে নতুন কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে নাম প্রস্তাব নেওয়া হয়। প্রস্তাবিতদের নিয়ে নেতৃবৃন্দ রুদ্ধদ্বার বৈঠক শেষে সাবেক কমিটি বহাল রাখার ঘোষণা দেন।