যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত চার নারীর জয়ে হাউফোর অভিনন্দন

প্রকাশিত

স্টাফ রিপোর্টার: যুক্তরাজ্যের সাধারণ নির্বাচনে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত চার নারী পার্লামেন্ট সদস্য নির্বাচিত (জয়ী) হওয়ায় অভিনন্দন জানিয়েছেন, হাস্য উজ্জ্বল ফোরাম (হাউফো)’র নেতারা। এক বার্তায় হাস্য উজ্জ্বল ফোরাম (হাউফো)’র চেয়ারম্যান মো. আল-আমিন শাওন এলএল.বি, সিনিয়র ভাইস-চেয়ারম্যান কবি রিতু নুর, ভাইস-চেয়ারম্যান এ্যাড. শাহিদা রহমান রিংকু, মহাসচিব ফাতেমা ইসলাম, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব কাজী জহির উদ্দিন তিতাস, সাংগঠনিক সম্পাদক জেসমীন নুর প্রিয়াংকা প্রমূখ অভিনন্দন জানিয়েছেন।

জানা যায়, যুক্তরাজ্যে বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত সাধারণ নির্বাচনে জয় পেয়েছেন, চার বাংলাদেশি নারী। তারা হলেন- রুশনারা আলী, টিউলিপ রেজওয়ানা সিদ্দিক, রূপা হক ও আফসানা বেগম। এদের মধ্যে রুশনারা সর্বোচ্চ চারবার ব্রিটিনের পার্লামেন্ট সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। অন্যদিকে, ব্রিটেনে হ্যাটট্রিক জয় পেয়েছেন টিউলিপ ও রূপা হক। তবে এবারই প্রথমবারের মতো পার্লামেন্ট সদস্য নির্বাচিত হলেন আফসানা। এমমধ্যে রুশনারা আলী বেথনাল গ্রিন অ্যান্ড বো আসনে, টিউলিপ রেজওয়ানা সিদ্দিক হ্যাম্পস্টেড অ্যান্ড কিলবার্ন আসনে, রূপা হক ইলিং সেন্ট্রাল অ্যান্ড অ্যাকটন আসনে এবং আফসানা বেগম হ্যামলেটস এলাকার পপলার অ্যান্ড লাইম হাউস আসনে জয়ী হন।

রুশনারা আলী : সিলেটের রুশনারা টানা চারবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। ২০১০ সালের নির্বাচনে প্রথম বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত প্রার্থী হিসেবে রুশনারা ব্রিটিশ পার্লামেন্টে এমপি নির্বাচিত হন। সেবার তিনি প্রায় ১২ হাজার ভোটে জয়ী হন। এরপর ২০১৫ সালের নির্বাচনে ২৪ হাজারের বেশি ভোটের ব্যবধানে তাক লাগানো জয় পেয়ে দ্বিতীয় মেয়াদে এমপি নির্বাচিত হন।

এরপর তিনি ২০১৭ সালে পূর্ব লন্ডনের বেথনাল গ্রিন অ্যান্ড বো আসনে টানা তৃতীয়বারের মতো নির্বাচিত হয়েছিলেন। এবারও চতুর্থবারের মতো আসনটি ধরে রাখলেন জনপ্রিয় এই বাঙালি নারী। অক্সফোর্ড-পড়ুয়া রুশনারার জন্ম সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলায়। সাত বছর বয়সে তিনি মা-বাবার সঙ্গে যুক্তরাজ্যে যান।

টিউলিপ রেজওয়ানা সিদ্দিক : বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছোট মেয়ে শেখ রেহানার মেয়ে টিউলিপ। তিনি এবারও উত্তর-পশ্চিম লন্ডনের হ্যাম্পস্টেড অ্যান্ড কিলবার্ন আসন থেকে প্রার্থী হয়েছিলেন এবং বিপুল ভোটে জয় পেয়েছেন। ২০১৫ সালে লেবার দলের মনোনয়ন পেয়ে প্রথমবারের মতো ব্রিটিশ এমপি নির্বাচিত হন টিউলিপ। ২০১৭ সালে পুননির্বাচিত হয়ে দ্বিতীয়বারের মতো তিনি এই আসনের এমপি হন। এবার তিনি তৃতীয়বারের এ আসনে জয় পেলেন।

রূপা হক : এবার হ্যাটট্রিক করেছেন রূপা হক। ২০১৫ সালের নির্বাচনে লন্ডনের ইলিং সেন্ট্রাল অ্যান্ড অ্যাকটন আসন থেকে প্রথমবারের মতো এমপি নির্বাচিত হন তিনি। একইভাবে ২০১৭ সালেও নির্বাচিত হন। কিংসটন ইউনিভার্সিটির সমাজবিজ্ঞানের জ্যেষ্ঠ শিক্ষক রূপা লন্ডনে জন্মগ্রহণ করেন। বাংলাদেশে তার আদি বাড়ি পাবনায়।

আফসানা বেগম : লেবার পার্টির হয়ে টাওয়ার হ্যামলেটস এলাকার পপলার অ্যান্ড লাইম হাউস আসন থেকে এবারই প্রথমবারের মতো জয় পেয়েছেন আফসানা বেগম। নির্বাচন পূর্ববর্তী জরিপ থেকেই তার জয় সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যায়। তিনি সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার মেয়ে। বাবার পথ ধরে রাজনীতিতে আসেন আফসানা।
আফসানা পূর্ব লন্ডনের পপলার অ্যান্ড লাইমহাউস আসনে ভোটে দাঁড়ান। লেবার পার্টির প্রার্থী হিসেবে পেয়েছেন ৩৮ হাজার ৬৬০ ভোট। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কনজারভেটিভ পার্টির প্রার্থী শন ওক পেয়েছেন মাত্র ৯ হাজার ৭৫৬ ভোট। অর্থাৎ প্রথমবার নির্বাচন করেই বিপুল ব্যবধানে জয় পেয়েছেন আফসানা। আফসানার বাবা প্রয়াত মনির উদ্দিন জগন্নাথপুর পৌরসভার লুদুরপুর এলাকার বাসিন্দা ছিলেন। তিনিও ছিলেন লেবার পার্টির সদস্য। লন্ডনের টাওয়ার হ্যামলেটসের মেয়র নির্বাচিত হয়েছিলেন।