বিভাগ - সারাদেশ

রাজারহাটে ৮ কিমিতে শতাধিক গর্ত যান চলাচলে ভোগান্তি

প্রকাশিত

এ.এস.লিমন,রাজারহাট( কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধিঃ কুড়িগ্রামের রাজারহাট-সেলিমনগর ৮কিলোমিটার সড়কে শত শত খানা-খন্দের সৃষ্টি হওয়ায় চরম জনদূর্ভোগের সৃষ্টি হয়েছে। এই সড়কে যাত্রীবাহী বাস, পণ্যবাহী ট্র্যাক, সাইকেল, রিক্সা,অটোরিক্সা,মাইক্রো, ডে-নাইট কোচসহ সব ধরনের যানবাহনকে হেলেদুলে চলাচল করতে হচ্ছে। এতে যে কোন সময় বড় ধরনের দূর্ঘটনা ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন চালক ও যাত্রীরা। রাজারহাট বাজার থেকে সেলিমনগর খেদাবাগ সড়কের দুরত্ব ৮কিলোমিটার। এ সড়কের পাশে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও উত্তরাঞ্চলের একমাত্র কৃষি আবহাওয়া অফিস রয়েছে। এ সড়কটি উপজেলার ছিনাই ইউনিয়ন পরিষদ ও পার্শ্ববর্তী লালমনিরহাট জেলার সংযোগ সড়ক। সড়কটি দিয়ে চিলমারী, উলিপুর, কুড়িগ্রাম ও রাজারহাট উপজেলার শত শত মানুষ বিভিন্ন কাজের জন্য যাতায়াত করে। ফলে রাজারহাট-সেলিমনগর সড়কটি ব্যস্ততম হয়ে পড়ে। গত ৩ বছর আগে এলজিইডি বিভাগের আওতায় সড়কটি মেরামত ও সংস্কার করা হলেও বছর না ঘুরতেই সড়কটি চলাচলের অনুপযোগী হয়ে যায়। এমনকি দীর্ঘদিন ধরে ওই সড়কের কার্পেটিংসহ মাটি উঠে গিয়ে বেশ কয়েকটি বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এছাড়া শত শত খানা-খন্দ হওয়ায় যান চলাচলে চরম ভোগান্তি পোহাতে হয় চালক ও যাত্রীদের। যানবাহনের চালক, যাত্রী ও স্থানীয় বাসিন্দারা জানান,এক বছরের বেশী সময় ধরে সড়কটির কার্পেটিং উঠে গেছে। সৃষ্টি হয়েছে শতাধিক গর্ত। দিনের বেলায়ই গাড়ি চলাচল কষ্টকর। রাতে তা আরো কঠিন হয়ে উঠে। গাড়ির গতি খুব কম থাকলেও সড়কটি ব্যস্ততম হওয়ায় প্রতিদিনেই প্রায় ছোট-খাটো দুর্ঘটনা হচ্ছে। এছাড়া এ সড়ক দিয়ে শতশত শিক্ষার্থী ঝুঁকি নিয়ে রাজারহাট উপজেলার অন্যতম বিদ্যাপীঠগুলোতে যাওয়া-আসা করে। ২৭ জানুয়ারী সোমবার এ ব্যাপারে রাজারহাট উপজেলা প্রকৌশলী আবু তাহের মোঃ শফিউল্লাহ্ জানান, রাজারহাট-সেলিম নগর সড়কটির সংস্কার কাজের টেন্ডার কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন। টেন্ডার হয়ে আসলে সংস্কার দ্রুত করা হবে।