বিভাগ - সারাদেশ

লালমনিরহাটে ৭ জনের বিভিন্ন মেয়াদে সাজা

প্রকাশিত

মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাফা লালমনিরহাট প্রতিনিধি : ১৯ নভেম্বর লালমনিরহাট সদর উপজেলায় লবণের মূল্য বৃদ্ধির অভিযোগে ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার জয়শ্রী রানী রায় ৭ জন লবণ ব্যবসায়ীকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ডাদেশ দিয়েছেন। শহরের পাইকারী মূল্যের চেয়ে বেশি মূল্যে লবণ বিক্রি করায় সোনার গাঁ ভ্যারাটি স্টোরের মালিক হাজী গোফরান মিয়া ও তার সহযোগী লুৎফর রহমান, ইয়াকুব আলীর ১ বছর কারাদন্ড। বড়বাড়ী হাটের লবণ ব্যবসায়ী বিনয় কুমার কৃষ্ণ রায়কে ৬ মাস। ১৫ টাকার খোলা লবণ ৩৫ টাকায় বিক্রি করায় আইনুল ইসলাম, ওবায়দুল রহমান ও আজহারুল ইসলামকে ৭ দিনের কারাদন্ড দেয়া হয়। হাতীবান্ধায় উপজেলা নির্বাহীকর্মকর্তা সামিউল আমিন এর নেতৃতে ভ্রাম্যমা আদালত দিয়ে কয়েকজন কে জরিমানা করা হয়। এছাড়াও জেলার ৫টি উপজেেলায় অভিযান পরিচালনা করা হয়।

উল্লেখ্য হঠাৎ করে কতিপয় ব্যবসায়ী অধিক মুনাফার লোভে লবণের মূল্য বৃদ্ধি করে দেয়। এই সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে ক্রেতারা বাজারে এসে লবণ কিনতে শুরু করে। ক্রমেই লবণের মূল্যবৃদ্ধির গুজব ছড়িয়ে পড়ে। জেলা ও পুলিশ প্রশাসন দ্রুত হস্তক্ষেপ নিয়ে এবং ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে লবণের মূল্যকে স্থিতিশীল পর্যায়ে নিয়ে আসে। সেই সাথে গুজবে কান না দেয়ার জন্য প্রশাসনের পক্ষথেকে দিন রাত মাইকিং করে প্রচারণা চালায় জনমনে স্বস্তি আসে।