লিফট ছেড়ে কেন সিঁড়ি দিয়ে উঠবেন!

প্রকাশিত

এওয়ান নিউজ ডেস্ক: আমরা অনেকেই ওজন কমানোর চেষ্টা করি, কিন্তু কিছুতেই কেন ওজন কমছে না ভেবে হতাশ হয়ে যাই। এর জন্য আসলে আমাদের কিছু জীবনযাপন পদ্ধতি দায়ী। সুস্থতার জন্য পরিমাণমতো সঠিক খাদ্যগ্রহণের সঙ্গে প্রয়োজন নিয়মিত ব্যায়াম। এমনই একটি ব্যায়াম সিঁড়ি দিয়ে ওঠানামা।

তবে অনেকেই সময় ও সুযোগের অভাবে নিয়মিত ব্যায়াম করতে পারেন না। এমন হলে আমাদের দৈনন্দিন জীবনযাপনের কিছু অভ্যাসে বদল আনা জরুরি। এর মধ্যে অন্যতম হলো লিফটের বদলে সিঁড়ি ব্যবহার। আসুন দেখে নেই সিঁড়ি ব্যবহারের উপকারিতাগুলো কী কী।

হৃৎপিণ্ডের জন্য ভালো
সিঁড়ি ভাঙলে কার্ডিওভাসকুলার অর্থাৎ শ্বাসযন্ত্র ও রক্তনালীর দারুণ কার্যক্রম চলে। এতে নানারকম রোগ থেকে মুক্ত থাকা যায়। ডায়াবেটিস ও উচ্চ রক্তচাপের ঝুঁকি কমায় নিয়মিত সিঁড়ি ভাঙলে।

ওজন কমায়
আপনি যত তালা সিঁড়ি ভাঙবেন, আপনাকে তত তালার প্রতোট সিঁড়িই পায়ে হেঁটে উঠতে হবে। এভাবে দীর্ঘক্ষণ ধরে শরীর একই কাজের মধ্যে থাকে। ফলে নিয়মিত সিঁড়ি ভাঙলে সুস্থ থাকার পাশাপাশি ওজন কমবে।

কার্যকরী শারীরিক কর্মকাণ্ড
শরীরের জোড়গুলো সচল ও স্বাভাবিক রাখতে কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারে হাঁটা ও সিঁড়ি ভাঙার মতো কার্যক্রম। অল্প দূরত্ব হেঁটে গন্তব্যে যাওয়া অথবা লিফটের বদলে কয়েক তলা সিঁড়ি ব্যবহার করে ওঠা ফাংশনাল অ্যাকটিভিটি হিসেবে কাজ করে।

মৃত্যুঝুঁকি কমায়
প্রতিদিন আট তলার সমান সিঁড়ি ভাঙলে তা প্রায় ৩৩ শতাংশ মৃত্যুঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে। হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি কমাতে প্রতিদিন সাত মিনিট সিঁড়ি দিয়ে ওঠানামা বেশ কার্যকর।

অস্টিওপোরোসিস
আর্থ্রাইটিসের সবচেয়ে সাধারণ ধরণ অস্টিওপোরোসিসের ঝুঁকি কমায় সিঁড়ি ভাঙার অভ্যাস।

মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য ভালো
সুস্থ শরীরের জন্য যেকোনো শারীরিক কার্যক্রম দারুণ উপকারী। সিঁড়ি দিয়ে ওঠানামা এমনই একটি শারীরিক কার্যক্রম, যা প্রতিদিন করা যায়। আবার খুব একটা সময়ও লাগে না। এটি আপনাকে মানসিকভাবে আরও বেশি শক্তিশালী ও স্থিতিশীল হতে সাহায্য করে।

সুস্থ ফুসফুসের জন্য
নিয়মিত সিঁড়ি দিয়ে ওঠানামা করলে আমাদের ফুসফুস ও হৃৎপিণ্ড সুস্থ থাকে। এটি আমাদের ফুসফুসের কার্যক্ষমতা বাড়ায়।

সিঁড়ি দিয়ে ওঠানামা করার সবচেয়ে ভালো দিক হচ্ছে এটি করার জন্য আপনাকে আলাদা করে মেশিন কিনতে হবে না বা জিমে দৌড়াতে হবে না। আবার দৌড়ানোর জন্য আলাদা জায়গা বা সুযোগ খুঁজতে হবে না। যেকোনো জায়গায়, যেকোনো সময় চাইলেই আপনি কয়েক ধাপ সিঁড়ি ভাঙতেই পারেন। তাই সুস্থতার জন্য প্রতিদিন সিঁড়ি দিয়ে ওঠানামা করার চেষ্টা করুন।