বিভাগ - সারাদেশ

শৈলকুপায় দু-দল গ্রামবাসির সংঘর্ষ, মহিলা সহ আহত ৭

প্রকাশিত

স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহঃ আধিপত্য বিস্তার নিয়ে ঝিনাইদহের শৈলকুপায় দু-দল গ্রামবাসির মধ্যে সংঘর্ষ ও বাড়িঘর ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। এরা সবাই আওয়ামী লীগের সমর্থক বলে এলাকাবাসীরা জানান। সংঘর্ষ ও ভাংচুরের ঘটনাটি সোমবার সকালে উপজেলার ধুলীয়াপাড়া গ্রামে। এ সময় মহিলা সহ ৭ ব্যক্তি আহত ও ২০টা বাড়িঘর ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। আহতদের শৈলকুপা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে নিয়ে আসে।এলাকাবাসি জানায় আধিপত্য নিয়ে ধুলীয়াপাড়া গ্রামে দীর্ঘদিন ধরে রশিদ মাতব্বর ও মকবুল মৌরীর মধ্যে বিরোধ চলে আসছে। রোববার সন্ধায় রশিদ ও মকবুল মৌরীর সমর্থকদেও মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এরই সূত্র ধরে সোমবার সকালে মকবুল সমর্থকরা রশিদ সমর্থকদের বাড়িঘরে হামলা চালায়। এ সময় খাতের আলী, ইউনুস মন্ডল, আবু কালাম, মাছুমা রাবেয়া খাতুন সহ ৭ ব্যক্তি আহত গুরুত্বর ভাবে আহত হয়েছে। হামলায় সফিউদ্দিন খান, ওবায়েদ আলী, আবু কালাম, মনোয়ার, হেলাল খান, কুদ্দুস, আয়ুব আলী, নায়েব আলী, নিজাম, লতিফের বাড়ি সহ ২০টি বাড়ি ভাংচুর মালামাল লুঠপাট হয়েছে। আহত ৫ জনকে শৈলকুপা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও মুক্তার হোসেন (৩২) কে কুষ্টিয়া মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।ক্ষতিগ্রস্থ মনোয়ার খান বলেন, সোমবার ভোরে মকবুল ও পলাশ সমর্থকরা তাদের বাড়িঘরে হামলা চালিয়ে ভাংচুরের ঘটনা ঘটায়।ইতিপূর্বে একাধিক বার এই দুইজনের নেতৃত্বে নিরীহ জনগনের উপর হামলা ও বাড়ি ঘর ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। এলাকাবাসী প্রসাশনের হস্তক্ষেপ কামনা করে।

শৈলকুপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বজলুর রহমান বলেন ধুলীয়াপাড়া গ্রামে দু-দল গ্রামবাসির মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ঐ এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।