বিভাগ - সারাদেশ

শ্রীপুরে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে সংঘর্ষে আহত ৬ গ্রেফতার ১

প্রকাশিত

গাজীপুর প্রতিনিধি: গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলায় জমিজমা নিয়ে বিরোধকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষরা কুপিয়ে পিটিয়ে আহত করেছে ৬ জনকে। গত (৪ জুলাই) বিকেলে উপজেলার মাওনা ইউনিয়নের কপাটিয়াপাড়া গ্রামের ৮নং ওয়ার্ডে ঘটনাটি ঘটেছে।

আহতরা হলেন,মৃত হাছেন আলীর ছেলে মো. ইমান আলী (৬৫), মফিজুল ইসলামের দুই ছেলে মাসুদ রানা (২১),ইয়াসিন (১৫),মৃত শহিদুল ইসলামের ছেলে জাফর ইকবাল (২০),ইমান আলীর দুই ছেলে উজ্জল মিয়া (৩৫),শাহিন আলম (৩৮)। গুরুতর আহত অবস্থায় তাদেরকে শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় ৫জুলাই শ্রীপুর মডেল থানায় ১৩ জনের নাম উল্লেখ করে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন আহতদের স্বজন ফরিদা আক্তার।

থানায় দেয়া অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার মাওনা ইউনিয়নের কপাটিয়া গ্রামের মৃত খেচি শেখের ছেলে মারফত আলী (৪২) গংদের সাথে মৃত হাছেন আলীর ছেলে মো. ইমান আলী (৬৫)গংদের দীর্ঘদিন ধরে জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। এ নিয়ে গত (৪জুলাই) উভয় পক্ষের মধ্যে জমি চাষাবাদ নিয়ে মারামারি হয়।

ফরিদা আক্তার জানান,বিগত ১৮ বছর পূর্বে আমার বাবা ইমান আলী করিদ সুত্রে ২১ শতাংশ জমির খাজনা খারিজ করে জমিতে ধান ফসল ফলাইয়া ভোগ দখলে নিয়ত আছেন। তফসিলী জমিতে বাউন্ডারী ওয়াল নির্মাণ করাইতে থাকা অবস্থায় বিকালে তিনটার দিকে আমার বাবার জমিতে বেআইনী ভাবে প্রবেশ করে দখল করে নেওয়ার জন্য চেষ্টা করে। পরে তাদেরকে বাধা দিতে গেলে আমার বাবাকে মারধর শুরু করে।

এ ঘটনার অভিযোক্তরা হলেন মৃত খেচি শেখের ছেলে মারফত আলী (৪২),মৃতমোকছেদ আরীর ছেলে শাহিন আলম শাহিন (২৬), মারফত আলীর ছেলে ফয়সাল হোসাইন (১৮),কমুর উদ্দিন (৩৫) আলামিন (২২) আজিজুল ইসলাম (৪৫) জসিম উদ্দিন (৩৫) তমির হোসেন (৫৫) আতাবুদ্দিন (৪৮) মোশারফ হোসেন(২০) সেলিম (২০) হৃদয় (১৯) আইন উদ্দিন (৫২) পূর্ব পরিপলিকল্পিত ভাবে বে আইনি জনতা বদ্ধে রাম দা ছেনা লোহার রড লাঠিসহ চার দিকদিয়ে ঘিরে পথরোধ করিয়া পূর্বে জের ধরিয়া অনার্থক তর্কের সৃষ্টি করিয়া পিটিয়ে মাথায় কুপিয়ে গুরুতর হাড়কাটা জখম করে।

আহতদের চিৎকারে স্বজন ও এলাকাবাসীরা এগিয়ে এলে সন্ত্রাসীরা ঘটনাস্থল থেকে চলে যায়। স্বজনরা গুরুতর আহতদেরকে উদ্ধার করে শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসে।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত মারফত আলীর কাছে ঘটনার জন্য জানতে তার ব্যবহৃত মুঠোফোনে বারবার কল দিলেও তিনি তা রিসিভ করেননি।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উপ-সহকারী মেডিকেল অফিসার ডা: মইনুল আতিক বলেন, আহতদের মাথায় কাটা আঘাত রয়েছে ও শরীরের বিভিন্নস্থানে মারাত্মক ফুলা জখমের চিহ্ন রয়েছে।

শ্রীপুর মডেল থানার এস আই মহসীন হোসেন জানান,ঘটনার বিষয়ে থানায় মামলা হয়েছে,সেপ্রেক্ষিতে ৭ জুলাই সন্ধায় মৃত হাসেন আলীর ছেলে কমুর উদ্দিন (৩৫) একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অন্য আসামীদের ধরার জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।