বিভাগ - সারাদেশ

ষড়যন্ত্রকারীদের মোকাবেলায় সকল নেতাকর্মীকে সজাগ থাকতে হবে: এমপি আবু জাহির

প্রকাশিত

মঈনুল হাসান রতন হবিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট মোঃ আবু জাহির এমপি বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে আওয়ামী লীগ পরিচালিত হয়। তিনি যে সিদ্ধান্ত দেন, তাই আমরা পালন করি। তাঁর নেতৃত্বেই দল আজ সংগঠিত। বর্তমানে আওয়ামী লীগে লোকের অভাব নেই। এর চেয়েও বেশি জোয়ার ছিল এক সময়। কিন্তু ’৭৫ এর পর আওয়ামী লীগের যখন দুর্দিন ছিল, ওই সুবিধাবাদীদের পাশে পাওয়া যায়নি। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর কিছু সুবিধাবাদী লোক আওয়ামী লীগের ছেড়ে বিএনপিতে চলে যায়। এরকম লোক বর্তমানেও রয়েছে।গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় চুনারুঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথি’র বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।এমপি আবু জাহিরে আরো বলেন, দুস্কৃতিকারীরা ঘাপটি মেরে বসে আছে। ষড়যন্ত্র থেমে নেই। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে এখনও ষড়যন্ত্র চলছে। এই ষড়যন্ত্রকারীদের মোকাবেলায় সংগঠনের প্রতিটি নেতাকর্মীকে সজাগ থাকতে হবে। তিনি বলেন, বিভিন্ন এলাকার তুলনায় চুনারুঘাটে আওয়ামী লীগ অত্যন্ত সুসংগঠিত। দলের সকল পর্যায়ের নেতাকর্মীকে কাধে কাধ মিলিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র হাতকে আরো শক্তিশালী করতে হবে।উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট এম আকবর হোসেইন জিতুর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আবু তাহের এর পরিচালনায় সভায় বিশেষ অতিথি’র বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুল মজিদ খান এমপি।এছাড়াও বক্তৃতা করেন আওয়ামী লীগ জাতীয় পরিষদ সদস্য শহীদ উদ্দিন চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি অ্যাডভোকেট সিরাজুল হক চৌধুরী, অ্যাডভোকেট আবুল ফজল, চুনারুঘাট উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল কাদির লস্কর, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট লুৎফুর রহমান তালুকদার, অ্যাডভোকেট সালেহ আহমেদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আজমিরীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান মর্তুজা হাসান, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মশিউর রহমান শামীম, জাকির হোসেন চৌধুরী অসীম, হবিগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট নিলাদ্রী শেখর পুরকায়স্থ টিটু, সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মোতাচ্ছিরুল ইসলামসহ উপজেলার ১০টি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।সভার শুরুতেই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ সকল শহীদের আত্মার শান্তি কামনায় দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা এবং মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়।