সত্যিকার অর্থেই রাজদায়িত্ব ত্যাগ ছাড়া উপায় ছিল না: প্রিন্স হ্যারি

প্রকাশিত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: যুক্তরাজ্যের ডিউক অব সাসেক্স প্রিন্স হ্যারি বলেছেন, সত্যিকার অর্থেই রাজকীয় দায়িত্ব থকে পদত্যাগ না করে তাদের কোনো উপায় ছিল না। রোববার ( ১৯ জানুয়ারি) এক আনুষ্ঠানিক তহবিল সংগ্রহ আয়োজনে তিনি এ কথা বলেন। খবর বিবিসি।

এ সময় তিনি আরও বলেন, তার স্ত্রী মেগান মার্কেল এবং তিনি চাচ্ছিলেন রাজকীয় অর্থনৈতিক সুবিধা না নিয়েই রানির সেবায় নিজেদের নিয়োজিত রাখতে। কিন্তু দুর্ভাগ্যক্রমে তা সম্ভব হচ্ছে না।

এদিকে, রাজকীয় দায়িত্ব থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে নেওয়ার পর এই প্রথম কোনো আনুষ্ঠানিক বক্তৃতায় অংশ নিলেন প্রিন্স হ্যারি। এই বক্তব্যে প্রিন্স হ্যারি বলেছেন, তিনি এই ব্যাপারটি স্পষ্ট করে জানিয়ে দিতে চান, তারা কোথাও পালিয়ে যাচ্ছেন না। যুক্তরাজ্য তার জন্মভূমি এবং যুক্তরাজ্যের প্রতি তার যে ভালোবাসা তা অপরিবর্তিত থাকবে।

এর আগে, অর্থনৈতিক স্বাধীনতা না থাকার কারণে রাজকীয় দায়িত্ব থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে নেওয়ার সিদ্ধান্ত জানিয়েছিলেন প্রিন্স হ্যারি এবং তার স্ত্রী মেগান মার্কেল।

আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলীয় এইচআইভি আক্রান্ত শিশুদের জন্য তহবিল সংগ্রহ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে প্রিন্স হ্যারি আরও বলেন, তিনি অনুমান করতে পারেন এই কয়েক সপ্তাহে তার এবং তার পরিবারের সম্পর্কে সকলে কী কী জেনেছেন এবং পড়েছেন। কিন্তু তিনি জানেন সত্যিটা কি। তাই প্রিন্স হিসেবে নয়, ডিউক হিসেবে নয়, হ্যারি হিসেবে তিনি সেই সত্য উপস্থিত সবাইকে জানাতে চান। শুরুতেই তিনি বলেন, তার দাদী রানি এলিজাবেথের ব্যাপারে তার রয়েছে অগাধ শ্রদ্ধা। যদিও এই বসন্ত থেকে তারা আর রাজকীয় পদবী ব্যবহার করতে পারবেন না। তাদের কোনো রাজকীয় দায়িত্বও পালন করতে হবে না। পাশাপাশি তাদেরকে অংশ নিতে হবে না।

বাকিংহাম প্যালেসের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, প্রিন্স হ্যারি ও মেগান মার্কেল এখন থেকে নির্বিঘ্নে তাদের ব্যক্তিগত জীবন কাটাতে পারবেন।