বিভাগ - সারাদেশ

সমুদ্র বন্দর মোংলায় দ্বিতীয় দিনেও চলছে পরিবহণ ধর্মঘট

প্রকাশিত

বাগেরহাট প্রতিনিধি : দেশের দ্বিতীয় সমুদ্র বন্দর মোংলার সাথে মঙ্গলবার দ্বিতীয় দিনের মতো সারা দেশের সাথে সড়ক যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। মোংলা-বাগেরহাট, মোংলা-খুলনা, মোংলা-রুপসাসহ অন্যান্য সকল রুটে বাস-মিনিবাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। মঙ্গলবার দ্বিতীয় দিনের মত চলা পরিবহণ ধর্মঘটের কারণে চরম দুর্ভোগে পড়েছে এ সকল রুটে যাতায়াতকারী যাত্রী সাধারণ। এ সুযোগে ইজিবাইক, মাহিন্দ্র, পিকআপ, মাইক্রোবাসসহ ছোট গাড়িগুলোতে কয়েকগুণ বেশি ভাড়া দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে যাত্রীদের গন্তব্য স্থলে পৌঁছাতে হচ্ছে। তবে, শ্রমিকরা বলছে, সাধারন যাত্রীদের র্দূভোগের কথা বিবেচনা করে কয়েকটি গাড়ী চালানো হচ্ছে। সড়ক পরিবহণ মন্ত্রনালয়ের নতুন সড়ক পরিবহণ আইন কার্যকরের প্রতিবাদে অনিদৃষ্টকালের এই ধর্মঘট শুরু করছে বাস-মিনিবাস মালিক সমিতি।

অপরদিকে নতুন সড়ক পরিবহন আইন সংশোধনের দাবিতে দেশের বিভিন্ন জেলায় বাসচালক ও শ্রমিকদের ডাকে চলা ধর্মঘট ও কর্মবিরতির কোন প্রভাব পড়েনি বাগেরহাটে। সোমবার ও মঙ্গলবার বাগেরহাট বাগেহাটের অভ্যন্তরিন ও দুরপাল্লার সবকটি রুটের বাস চলাচল ছিল স্বাভিবিক। বাগেরহাট আন্তঃজেলা বাস মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারন সম্পাদক আব্দুল বাকী তালুকদার ও জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি রেজাউর রহমান মন্টু এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি রেজাউর রহমান মন্টু বলেন, বাগেরহাটের মটর শ্রমিকরা কোন আন্দোলন করছে না। জেলার সকল রুটে বাস-মিনিবাস চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। বাগেরহাট আন্তঃজেলা বাস মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারন সম্পাদক আব্দুল বাকী তালুকদার বলেন, নতুন সড়ক পরিবহন আইনের প্রতি বাগেরহাট বাস মালিক সমিতির সমর্থন রয়েছে। তাই বাস-মিনিবাস চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। তবে উত্তরবঙ্গ ও বেনাপোলের সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। তিনি, সড়কে নসিমন-করিমন, ভটবটি, ও ব্যাটারী চালিত ভ্যান রিক্সা বন্ধ করার জন্য প্রশাসনের প্রতি জোর দাবী জানান।