সরকারি ছুটির মেয়াদ আরেক দফা বাড়লো

প্রকাশিত

নিজস্ব প্রতিবেদক: বৈশ্বিক মহামারী করোনাভাইরাস সংকটে সরকারি ছুটি আগামী ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। এ নিয়ে চতুর্থবারের মতো সাধারণ ছুটি বাড়ানো হল। অবশ্য এখনো এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জানি করা হয়নি। মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটির মেয়াদ বাড়ানো নিয়ে আলোচনা হচ্ছে।

কোভিড-১৯ মহামারী মোকাবেলায় প্রথম দফায় ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি দেয়া হয়েছিল। এরপর ছুটি বাড়িয়ে তা ১১ এপ্রিল করা হয়। ছুটি তৃতীয় দফা বাড়িয়ে করা হয় ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত। পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত চতুর্থ দফা ছুটি বাড়ানো হয়েছে।

সর্বশেষ করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত ছয় জন গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন। ফলে এই ভাইরাসে এ পর্যন্ত ২৭ জনের প্রাণহানি হলো দেশে। একই সময়ে সারাদেশে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৯৪ জন। এতে করে দেশে কোভিড-১৯ রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ৪২৪ জনে। শুক্রবার (১০ এপ্রিল) দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদফতরের নিয়মিত বুলেটিনে এ তথ্য জানানো হয়।

বুলেটিনে রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদি সেব্রিনা ফ্লোরা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে ১১৮৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এসব নমুনায় ৯৪ জনের নমুনায় করোনাভাইরাসের উপস্থিতি শনাক্ত করা হয়েছে। আর আগের দিন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত একজন মারা গেলেও গত ২৪ ঘণ্টায় ছয় জন মারা গেছেন।

ডা. ফ্লোরা আরও বলেন, নতুন আক্রান্ত ৯৪ জনের মধ্যে ৩৭ জন ঢাকার। এছাড়া আমরা আগেই বলেছিলাম নারায়ণগঞ্জ করোনাভাইরাসের হটস্পট হয়ে উঠেছে। সেখানে আরও ১৬ জন আক্রান্ত হয়েছেন।

ব্রিফিংয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক ডা. সানিয়া তাহমিনা বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ১২৯৭টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। আগের সংগৃহীত ও নতুন সংগৃহীত নমুনা থেকে ১১৮৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। আগের দিনের তুলনায় নমুনা সংগ্রহ বেড়েছে ৩১ শতাংশ, নমুনা পরীক্ষা বেড়েছে ১৮ শতাংশ।

ডা. সানিয়া তাহমিনা আরও বলেন, করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষার জন্য আমরা মোট ৯২ হাজার কিট সংগ্রহ করেছিলাম। আমাদের এখনো ৭১ হাজার কিট মজুত রয়েছে। এছাড়া, গত ২৪ ঘণ্টায় কোয়ারেনটাইনে নেওয়া হয়েছে ২৪৭৪ জনকে, কোয়ারেনটাইন থেকে ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে ৬০৪ জনকে। মোট ১২ হাজার কোয়ারেনটাইনে আছেন।