বিভাগ - সারাদেশ

সিলেট মৎস্য ব্যবসায়ীদের সড়ক অবরোধ

প্রকাশিত

সিলেট নগরীর লালবাজারের মাছ বাজার থেকে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের কর্মচারীদের মাছ কেড়ে নেওয়ার ঘটনার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার সকাল ৮টার দিকে লালবাজার সংলগ্ন বন্দরবাজার প্রধান সড়ক অবরোধ করেন শত শত মৎস্য ব্যবসায়ীরা। ওই দিন সকাল ৭টা থেকে বন্দরবাজার এলাকার ফুটপাত দখল করে বসে থাকা হকারদের উচ্ছেদে নামেন সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। অভিযানের এক ফাঁকে মেয়রের সাথে থাকা সিটি কর্পোরেশনের অতি উৎসাহী কিছু কর্মচারি অতর্কিতভাবে লালবাজারে মাছ বাজারে ঢুকে মাছ ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে মাছ কেড়ে নিয়ে গাড়ীতে তুলে নিলে এ ঘটনার সূত্রপাত হয়।

ব্যবসায়ীদের অভিযোগ বাজার থেকে প্রায় ৭০/৮০ হাজার টাকার মাছ ও নগদ টাকা লুঠপাট করা হয়। ঘটনার খবর চারিদিকে ছড়িয়ে পড়লে নগরীর বিভিন্ন স্থান থেকে দলে দলে মৎস্য ব্যবসায়ীরা এসে বন্দরবাজারের বিক্ষোভ কর্মসূচীতে যোগ দেন। বিক্ষুব্ধ মাছ ব্যবসায়ীরা এসময় মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর বিরুদ্ধে নানা প্রকার শ্লোগান দেন। এ ঘটনায় সকাল বেলা নগরীর রাজপথ উত্তপ্ত হয়ে উঠে। মৎস্যব্যবসায়ীদের অবরোধের ফলে প্রায় আড়াই ঘন্টা রাস্তায় যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। ফলে যানজটে দূর্ভোগ পোহাতে হয় সকাল বেলার যাত্রী ও পথচারীদের। ঘটনার খবর পেয়ে কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সেলিম মিয়া পুলিশ ফোর্স সহ ঘটনাস্থলে পৌছে লালবাজার মৎস্য ব্যবসায়ী সমিতি লিমিটেডের নেতৃবৃন্দের সাথে কথা বলেন। তিনি ন্যায়সঙ্গত সমাধানের আশ্বাস দিলে মৎস্য ব্যবসায়ীরা তাতে রাজী হন। পরবর্তীতে ওসির উদ্যোগে লালবাজারে আসেন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। এসময় তিনি লালবাজার মৎস্যব্যবসায়ী সমবায় সমিতি লিমিটেডের কার্যালয়ে এই অনাকাঙ্খিত ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করে ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন। তিনি ভবিষ্যতে এ ধরনের ঘটনার পূণরাবৃত্তি যাতে না ঘটে সে জন্য কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে আশ্বাস দেন। মেয়রের এই আশ্বাসের প্রেক্ষিতে মৎস্য ব্যবসায়ীরা আন্দোলন প্রত্যাহার করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, প্যানেল মেয়র-১ কাউন্সিলর তৌফিক বক্স লিপন, কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সেলিম মিয়া, বৃহত্তর লালবাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি এনায়েত হোসেন, সাধারণ সম্পাদক গোলজার আহমদ জগলু, বৃহত্তর লালবাজার দোকান মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম, আজাদ মিয়া, আব্দুস সাত্তার, মোক্তাদির আলী, জহির উদ্দিন কুনুু, নিজাম উদ্দিন ইরান, ফারুক আহমদ, দবির আহমদ, দারা মিয়া, আফাজ উদ্দিন, শায়েস্তা মিয়া, মামুন আহমদ সহ নগরীর বিভিন্ন বাজার ব্যবসায়ী সমিতির নেতৃবৃন্দ।