বিভাগ - অপরাজিতা

সুদানে নারীদের নিয়ন্ত্রণকারী আইন বাতিল

প্রকাশিত

এওয়ান নিউজ ডেস্ক: সুদানের অন্তর্বর্তীকালীন সরকার এমন একটি আইন বাতিল করেছে, যার মাধ্যমে সুদানি নারীরা জনসমক্ষে কী করতে পারবেন বা কোন পোশাক পরতে পারবেন, সেসব পর্যন্ত নিয়ন্ত্রণ করা হতো।

সুদানে গণতন্ত্রের জন্য যারা আন্দোলন করছেন তারা এসব পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়ে বলেছেন, একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র গড়ে তোলার উদ্দেশ্যে এগুলো গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ।

একই সাথে সরকার দেশটির ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট ওমর আল বশিরের দলকে বিলুপ্ত ঘোষণা করেছে এবং দলটির সব সম্পদ জব্দ করেছে। মি. আল বশিরের দল এসব সিদ্ধান্তকে বেআইনি বলে বর্ণনা করেছে। তীব্র গণ আন্দোলনের মুখে তিন দশক ধরে ক্ষমতায় থাকা ওমর আল বশির কয়েক মাস আগে ক্ষমতাচ্যুত হন।

সুদানে ওমর আল বশির এবং তার দল ন্যাশনাল কংগ্রেস পার্টি যে কঠোর ইসলামী অনুশাসন জারি করেছিল, সেখানে ভিন্নমত প্রকাশের কোন সুযোগ ছিল না।

এক্ষেত্রে সবচেয়ে কুখ্যাত ছিল একটি জন-শৃঙ্খলা আইন, যা দিয়ে মানুষের, বিশেষ করে নারীদের সামাজিক আচরণ নিয়ন্ত্রণ করা হতো।

মেয়েরা মুক্তভাবে চলাফেরা করতে পারতো না, পুরুষদের সঙ্গে মিশতে পারতো না, উচ্চশিক্ষা এবং চাকুরিতে তাদের অধিকার খর্ব করা হয়েছিল। পুরুষদের মতো ট্রাউজার পরলে সেটার শাস্তি ছিল ৪০ ঘা চাবুক।

সুদানের নতুন প্রধানমন্ত্রী আবদাল্লা হামদকসুদানের নতুন প্রধানমন্ত্রী আবদাল্লা হামদক।

সুদানে এই আইনটির প্রয়োগও ছিল বৈষম্যমূলক, রাজধানী খার্তুমে ধনী পরিবারের নারীরা ট্রাউজার্স পরে প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ালেও তাদের কিছু হতো না, কিন্তু বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এই আইনে শাস্তি পেতেন পিছিয়ে পড়া অঞ্চলের দরিদ্র নারীরা।

সাবেক প্রেসিডেন্টের দল বিলুপ্ত

সুদানের নতুন প্রধানমন্ত্রী আবদাল্লা হামদক আজ শুধু নারীদের নিয়ন্ত্রণকারী আইনই বাতিল করেননি, একই সঙ্গে সাবেক প্রেসিডেন্টের দলকেও বিলুপ্ত ঘোষণা করেছেন।

এই দলটি প্রেসিডেন্ট ওমর আল বশিরের ক্ষমতা টিকিয়ে রাখার ক্ষেত্রে খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি সংগঠন, সুদানে সমাজের প্রতিটি অংশ তারা নিয়ন্ত্রণ করতো। এখন এই দল বিলুপ্ত করার ফলে সুদানে অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠা অনেক সহজ হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

সুদানে সামনের কয়েক বছরের মধ্যে একটি গণতান্ত্রিক নির্বাচন আয়োজনের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে এই অন্তর্বর্তীকালীন প্রশাসনকে। সূত্র-বিবিসি বাংলা।