ফটো গ্যালারি

শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের আরএমও’র ওপর জেলা আ.লীগের সাধারন সম্পাদকের হামলা

শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের আরএমও’র ওপর জেলা আ.লীগের সাধারন সম্পাদকের হামলা \

শরীয়তপুর প্রতিনিধি: শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার (আরএমও)’র সুমন কুমার পোদ্দারের ওপর শরীয়তপুর জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও দৈনিক ইত্তেফাকের শরীয়তপুর প্রতিনিধি অনল কুমার দে’র নেতৃত্বে হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। রবিবার (২১ জুলাই ২০১৯) বিকালে শহরের সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন নিপুন ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের সামনে এ ঘটনা ঘটে। আহত সুমন কুমার পোদ্দার’কে সদর হাসপাতলে ভর্তি করা হয়েছে। এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত পালং থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছিল।

শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত আরএমও সুমন কুমার পোদ্দার জানান, রবিবার বিকালে শরীয়তপুর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন নিপুন ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের সামনে শরীয়তপুর জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও দৈনিক ইত্তেফাকের শরীয়তপুর প্রতিনিধি অনল কুমার দে আমাকে ডেকে নিয়ে আমার ওপর তিনি ও তার এলাকা ভেদরগঞ্জের ছয়গাঁওয়ের বখাটে মাসুদুর রহমান ডালিম ও শহরের বখাটে সবুজ দত্ত অতর্কিত হামলা করে। আহত অবস্থায় স্থানীয় ব্যবসায়ী তাজুল উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। এ ব্যাপারে আমি স্থানীয় সংসদ সদস্য, জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসন সহ স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তাদের অবহিত করেছি। খবর পেয়ে জেলা সিভিল সার্জন ডা. খলিলুর রহমান ও হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আবদুল্লাহ আমাকে দেখে গিয়েছেন। এ ব্যাপারে পালং থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। এদিকে একজন চিকিৎসকের ওপর ন্যাক্কারজনক হামলায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন শরীয়তপুরের নানান শ্রেণী পেশার মানুষ।

আহত ডা. সুমন পোদ্দার বলেন, আমার ওপর হামলাকারী শরীয়তপুর জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক অনল কুমার দে ও তার সহযোগী মাসুদুর রহমান ডালিম এবং সবুজ দত্ত’র বিচার চাই। সিভিল সার্জন ডা. খলিলুর রহমান বলেন, ডা. সুমন কুমার পোদ্দার আমাদের কাছে অভিযোগ করেছে। আমরা তাকে হাসপাতালে দেখতে গিয়েছি। ঘটনাটি নিন্দনীয়।

পালং থানার ওসি আসলাম উদ্দিন বলেন, ডা. সুমন কুমার পোদ্দার আমাদের কাছে মুঠোফোনে অভিযোগ করেছে। খবর পেয়ে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। মামলা হলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। অভিযুক্ত অনল কুমার দে’র বক্তব্যের জন্য মুঠোফোনে (০১৭১২৫৩৫১৭৫) বারবার কল দেওয়া হলে তিনি কেটে দেন।

মন্তব্য করুন

আরো সংবাদ