ফটো গ্যালারি

সাবেক তথ্যমন্ত্রীর মৃত্যুতে এনডিপি‘র শোক

সাবেক তথ্যমন্ত্রীর মৃত্যুতে এনডিপি‘র শোক \

এওয়ান নিউজ: সাবেক তথ্যমন্ত্রী রাজনীতি বিশ্লেষক ড. মিজানুর রহমান শেলী মারা গেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে সোমবার তিনি মারা যান। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৬ বছর।

তার মৃত্যুতে ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এনডিপি‘র চেয়ারম্যান খোন্দকার গোলাম মোর্ত্তজা ও মহাসচিব মোঃ মঞ্জুর হোসেন ঈসা গভীর শোক প্রকাশ করেন। শোক বিবৃতিতে মরহুমের রুহের মাগফেরাত কামনা করেন এবং শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। রাষ্ট্রবিজ্ঞানী ও শিক্ষাবিদ ড. মিজানুর রহমান শেলী গত ২৫ জুন অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি হন।

মিজানুর রহমান শেলী ১৯৪৩ সালে মুন্সিগঞ্জ জেলার কুসুমপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে লেখাপড়া শেষ করে ১৯৬৪ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগে শিক্ষক পদে যোগদান করেন।শিক্ষকতা ছেড়ে ১৯৬৭ সালে সরকারি চাকরিতে যোগদান করেন তিনি। চাকরিতে থাকা অবস্থায় লন্ডন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আন্তর্জাতিক রাজনীতির ওপর ডক্টরেট ডিগ্রি লাভ করেন। ১৯৮০ সালে সমাজকল্যাণ অধিদপ্তর পরিচালক থাকা অবস্থায় সরকারি চাকরি থেকে ইস্তফা দেন তিনি। ১৯৯০ সালে তিনি বাংলাদেশ সরকারের তথ্য এবং পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন।

তিনি বেসরকারি গবেষণা ও প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর ডেভেলপমেন্ট রিসার্চ বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এবং এশিয়ান অ্যাফেয়ার্সের সম্পাদক ছিলেন। এছাড়া প্রিমিয়ার লিজিং অ্যান্ড ফাইনান্সের চেয়ারম্যান হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছিলেন। সাপ্তাহিক সচিত্র স্বদেশ এর উপদেষ্টা সম্পাদক এবং ইংরেজি দৈনিক বাংলাদেশ টাইমস ট্রাস্টের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করা ছাড়াও বিভিন্ন পত্রিকা ও সাময়িকীতে নিয়মিত লিখতেন তিনি।তিনি সমাজবিজ্ঞান ও রাজনীতি বিষয়ক বই ছাড়াও কবিতা, উপন্যাস ও ভ্রমণ কাহিনী লিখেছেন।

মিজানুর রহমান শেলী সুফিয়া রহমানের সাথে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। ২০১৬ সালে তার সহধর্মিণী পরলোকগমন করেন।তাদের দুই সন্তানের নাম আরিফ ইবনে মিজান ও তাহমিদ ইবনে মিজান। ড. মিজানুর রহমান শেলী বাংলাদেশের অন্যতম সৃজনশীল চিন্তাবিদ, গবেষক, নেতৃস্থানীয় সমাজকর্মী ও সাহিত্যিক ছিলেন।

তার নাতি মাহফুজ মিজান জানান, রাজধানীর শমরিতা হাসপাতালের মর্গে ড. মিজানের মরদেহ রাখা হবে। বিদেশে অবস্থানরত তার ছেলে দেশে ফেরার পর আজিমপুর কবরস্থানে তাকে সমাহিত করা হবে।

মন্তব্য করুন

আরো সংবাদ