ফটো গ্যালারি

থানায় অভিযোগ দায়ের

জালালাবাদে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা-ভাংচুর: ১৫ লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি

জালালাবাদে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা-ভাংচুর: ১৫ লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি \


এসএমপির জালালাবাদ থানা এলাকায় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে সন্ত্রাসী হামলা লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে জালালাবাদ থানাধীন অনন্তপুর ব্রীজের পাশে এ হামলার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় রাতেই থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিক মো. আলেক মিয়া।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, মো. আলেক মিয়া জালালাবাদ থানার অনন্তপুর ব্রীজের পাশে বালুর ব্যবসা পরিচালনা করে আসছেন। আলেক মিয়ার মালামাল পরিবহণের জন্য দুটি ট্রাক সিলেট ড-১১-২২৯৪ ও সিলেট ড ১১-২২৭১ ও ১টি এক্সেলেটর আছে যা সব সময় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সামনে থাকে। অনন্তপুর ও পাইকারগাঁও রাস্তা নিয়ে বিরোধের জের ধরে ১৩ আগস্ট বিকেল আনুমানিক সাড়ে ৪টার দিকে জালালাবাদ থানার মৃত আব্দুর রউফের ছেলে ফয়সল, মৃত তৈয়ব উল্লার ছেলে আতা মিয়া, আলমের ছেলে ফয়েজ আহমদ, হাজারীর ছেলে কয়েছ আহমদ, লুকুর ছেলে হোসাইন, আব্দুস সোবহানের ছেলে শিমুল, মৃত বুলুর ছেলে জাহাঙ্গীর, মৃত গেদনের ছেলে কামাল, বেরুর ছেলে রিয়াজুল, মখলিছের ছেলে মান্না সহ আরো ৪/৫ জন অজ্ঞাতনামা আসামী দা, পাইপ, চাইনিজ কুড়াল, হকিষ্টিক সহ দেশীয় অস্ত্রসস্ত্রে সজ্জিত হয়ে অতর্কিতভাবে আলেক মিয়ার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা চালায়। আসামী ফয়ছল মো. আলেক মিয়াকে ব্যবসা করতে হলে ৫ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবি করে। আলেক মিয়া চাঁদা দিতে অপরগতা প্রকাশ করলে আসামী আতা মিয়া, ফয়েজ, কয়েছ, হোসাইন মো. আলেক মিয়ার দুটি ট্রাক ও ১টি এক্সেলেটর এর গ্লাস, টায়ার, ব্যাটারী, দরজা, সামনের কেচিং ভাংচুর সহ ১০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি সাধন করে। ঐ সময় আসামীরা আলেক মিয়ার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সাটার ভেঙ্গে আরো ১ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি করে। আসামী শিমুল ও অপর আসামী জাহাঙ্গীর ব্যবসায়ী আলেক মিয়ার গলায় চাকু ঠেকিয়ে ক্যাশে থাকা নগদ ৪ লক্ষ ৮০ হাজার নিয়ে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় আলেক মিয়াকে কোন মামলা করলে প্রাণে মারার হুমকি প্রদান করেন কামাল ও রিয়াজুল। এ ব্যাপারে তিনি প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তার সুদৃষ্টি করছেন।
এ ব্যাপারে জালালাবাদ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শাহ আলম জানান জানান, এঘটনায় একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। ঘটনার সতত্যা নিশ্চিত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মন্তব্য করুন

আরো সংবাদ