ফটো গ্যালারি

ডেঙ্গুতে আরও ৪ জনের মৃত্যু

ডেঙ্গুতে আরও  ৪ জনের মৃত্যু \

এওয়ান নিউজ ডেস্ক: ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে খুলনা, ময়মনসিংহ, রাজশাহী ও ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আরও ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে।আজ সোমবার সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয়।

ফরিদপুর: ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দেলোয়ার হোসেন (৪৫) নামে এক ব্যক্তি মারা গেছেন।আজ সোমবার বেলা সাড়ে ১০ টার দিকে মারা যায়।

মৃত. দেলোয়ার হোসেন সদর উপজেলার নর্থচ্যানেল ইউনিয়নের গোলডাঙ্গী গ্রামের সফিউদ্দিন আহমেদের ছেলে। সে ফরিদপুর শহরের পূর্বখাবাসপুরস্থ লঞ্চঘাট জামে মসজিদের খাদেম ছিলেন।

ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে গত শুক্রবার ফরিদপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি হন দেলোয়ার। অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় রবিবার রাতে তাকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়।

ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় এ নিয়ে ৬ জনের মৃত্যু হল। ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক কামদা প্রসাদ সাহা জানান, দেলোয়ার রবিবার রাতে হাসপাতালে ভর্তি হয় এবং আজ সোমবার সকালে মারা যায়।

খুলনা: খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে মিজানুর রহমান (৪০) নামে এক সবজি বিক্রেতার মৃত্যু হয়েছে। এই নিয়ে ডেঙ্গুতে খুলনায় মোট পাঁচ জনের মৃত্যু হয়েছে।

আজ সোমবার সকাল ৭টায় খুমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওই রোগীর মৃত্যু হয়।মৃত মিজানুর রহমানের বাড়ি রূপসা উপজেলার খাজাডাঙ্গা গ্রামে। তার এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে।এর আগে ১৫ আগস্ট মিজানুর রহমান খুমেকের ডেঙ্গু ওয়ার্ডে ভর্তি হ‌য়ে‌ছি‌লেন।খুমেক হাসপাতালের আ‌বা‌সিক ফি‌জি‌সিয়ান (আরপি) ডা. শৈলেন্দ্রনাথ বিশ্বাস ডেঙ্গু রোগীর মৃত্যুর এ তথ্য জানান।

ময়মনসিংহ: ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়ে আনোয়ার হোসেন (৪০) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে।আনোয়ার হোসেন নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার আব্দুল লতিফের ছেলে।

আজ সোমবার ভোরে আনোয়ার হোসেন চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা.লক্ষ্মী নারায়ণ মজুমদার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, আনোয়ার হোসেন বেশ কয়েকদিন ধরে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে নেত্রকোণা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিল। রবিবার দুপুরে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আনোয়ারকে ভর্তি করা হলে সোমবার ভোরে অবস্থার অবনতি হওয়ায় তার মৃত্যু হয়।

তিনি আরও জানান, শরীরের বিভিন্ন অর্গানের কার্যকারিতা হারিয়ে ফেলার কারণে আনোয়ারের মৃত্যু হয়েছে। এনিয়ে মমেক হাসপাতালে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে।

কুষ্টিয়া: কুষ্টিয়া জেলার দৌলতপুর উপজেলার সীমান্ত সংলগ্ন বিলগাথুয়া গ্রামের বিল্লাল হোসেনের স্ত্রী চালন বেগম (৩৫) ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন।আজ সোমবার সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তিনি মারা যান।

নিহত চালন বেগম ঢাকায় গার্মেন্টেসে কর্মরত ছিলেন। ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ঈদে বাড়ি আসার পর অবস্থার অবনতি হলে গত ১৭ই আগস্ট তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিলো।স্থানীয় ইউপি সদস্য ইসমাইল হোসেন চালন বেগমের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মন্তব্য করুন

আরো সংবাদ