ফটো গ্যালারি

খালেদা জিয়ার দুর্নীতির গন্ধ এবার বিদেশেও ছড়াবে: হাছান মাহমুদ

খালেদা জিয়ার দুর্নীতির গন্ধ এবার বিদেশেও ছড়াবে: হাছান মাহমুদ \

এওয়ান নিউজ: তথ্যমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, দুর্নীতি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য বিদেশে ধরনা দেওয়ার কথা বলছে দলটি। এতে খালেদা জিয়ার দুর্নীতি দেশে যে দুর্গন্ধ ছড়িয়েছে, তা বিদেশেও ছড়াবে।

দলীয় প্রধান খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি নিয়ে বিএনপি আন্তর্জাতিক অঙ্গনে গেলে সেই পর্যায়েও সবাই তাকে দুর্নীতিবাজ হিসেবে জানবে বলে মন্তব্য করেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

সোমবার (১৯ আগস্ট) বিকেলে আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা উপ-কমিটির সভার শুরুতে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি এ মন্তব্য করেন। আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমণ্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এ সভায় সভাপতিত্ব করেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা উপ-কমিটির চেয়ারম্যান এবং প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম।

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিএনপি আন্তর্জাতিক অঙ্গনে যাওয়ার কথা বলছে- সাংবাদিকদের এরকম প্রশ্নের উত্তরে তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেন, খালেদা জিয়ার শাস্তি হয়েছে দুর্নীতির দায়ে। এতিমের টাকা আত্মসাৎ করেছেন এই অভিযোগে খালেদা জিয়ার শাস্তি দিয়েছেন আদালত। নিম্ন আদালত পাঁচ বছর সাজা দিয়েলেন, সাধারণত উচ্চ আদালতে সাজা বাড়ে না, কিন্তু উচ্চ আদালতে খালেদা জিয়ার সাজা বেড়ে ১০ বছর হয়েছে। খালেদা জিয়া এতিমের টাকা আত্মসাত করায় দুর্গন্ধ ছড়িয়েছে। এটা নিয়ে যদি বিএনপি আন্তর্জাতিক অঙ্গনে যায় তাহলে আন্তর্জাতিকভাবেও সবাই জানবে খালেদা জিয়া দুনীতি করেছেন, এতিমের টাকা আত্মসাত করেছেন।

অপর এক প্রশ্নের উত্তরে তথ্যমন্ত্রী বলেন, চামড়াশিল্পের উন্নয়ন ঘটেছে শেখ হাসিনার সরকারের আমলেই। এখন এক কোটির বেশি পশু কোরবানি হয়। পরিবেশগত কারণে চট্টগ্রামের কিছু ট্যানারি স্থানান্তর করা হচ্ছে। কিছু ট্যানারি বন্ধ হয়ে গেছে। এই সুযোগ নিয়ে এক শ্রেণীর ব্যবসায়ী চামড়ার দরপতন ঘটানোর জন্য সিন্ডিকেট করে। তারা সরকারকে বেকায়দায় ফেলতে এটা করে। তবে যারা এই সিন্ডিকেটের সঙ্গে জড়িত সরকার তাদের খুঁজছে।

হাছান মাহমুদ বলেন, খালেদা জিয়া এতিমদের অর্থ আত্মসাতের অপরাধে শাস্তি সাজা ভোগ করছেন। বিএনপি তাকে মুক্ত করতে আইনি লড়াইয়ে ব্যর্থ হয়েছে। এখন তারা বিদেশে ধরনা দেওয়ার কথা বলছে। বিএনপি মহাসচিবের করা ‘আওয়ামী লীগ চামড়াশিল্প ধ্বংস করে দিতে চায়’ মন্তব্যের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘চামড়াশিল্প নিয়েও বিএনপির অপরাজনীতি সফল হয়নি।’

বর্তমান সরকারের আমলে চামড়া রফতানি ৪০০ মিলিয়ন ডলার থেকে ২ বিলিয়নে উন্নীত হয়েছে দাবি করে তিনি বলেন, দেশে গত ১০ বছরের অর্থনৈতিক উন্নয়নে মানুষের ক্রয়ক্ষমতা বৃদ্ধির কারণে পশু কোরবানি দ্বিগুণেরও বেশি বেড়েছে। সে তুলনায় ট্যানারির সংখ্যা বাড়েনি, যদিও অনেক চামড়াশিল্প প্রতিষ্ঠানের সক্ষমতা বেড়েছে। তবে পরিবেশবান্ধব বিষয়টি নিশ্চিত করার বাধ্যবাধকতায় চট্টগ্রামসহ বেশ কিছু স্থানে ট্যানারি বন্ধও হয়ে গেছে। কিছু মুনাফালোভী এবারের ঈদে এ অবস্থারই সুযোগ নিতে চেয়েছিল বলে দাবি করেন তিনি।

হাছান মাহমুদ বলেন, ‘সে কারণেই চামড়ার দরপতন হয়। আর বিএনপি চেয়েছিল এটা নিয়ে অপরাজনীতি করতে। কিন্তু তারা সফল হয়নি, সরকার সিন্ডিকেটের বিষয়টি পূর্ণ তদন্ত করছে। ইতোমধ্যে তদন্তে অনেক তথ্য বেরিয়ে আসছে।’

প্রচার ও প্রকাশনা উপ-কমিটির সভা প্রসঙ্গে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, আগামী সেপ্টেম্বর ও অক্টোবর মাসের কর্মসূচি ঠিক করা হবে আজকের এই সভায়। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে আওয়ামী লীগকে নিয়ে তরুণদের ভাবনা নিয়ে আমরা কর্মশালা শুরু করেছি। এ ধরনের দু’টি কর্মশালা আমরা ঢাকা ও চট্টগ্রামে করেছি। অন্যান্য বিভাগীয় শহরেও এ ধরনের কর্মশালা করা হবে। সেপ্টেম্বরে রাজশাহী ও সিলেটে করা হবে। এছাড়া আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে কর্মসূচি ঠিক করা হবে এ সভায়।

এ সময় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা উপ-কমিটির চেয়ারম্যান এইচ টি ইমাম বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার ষড়যন্ত্রকারী, তাদের সমমনা, তাদের সন্তান ও দোসরেরা চক্রান্তমূলক কর্মকাণ্ড ও গুজব বিস্তার করে যাচ্ছে। তারা এখনো দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত, পরিবেশ অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করছে। এরা যেখানেই থাকুক, বিচারের আওতায় আনতে হবে।

সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, প্রচার উপ-কমিটির সদস্য সুভাষ সিংহ রায়, আশরাফ সিদ্দিকী বিটু, তারিক সুজাত, কাশেম হুমায়ুন, এনামুল হক খসরু প্রমুখ।

মন্তব্য করুন

আরো সংবাদ