ফটো গ্যালারি

পাবনার ভাঙ্গুরায় শেষ হল ৬ দিন ব্যাপি টেকনোলজি সপ্তাহ

পাবনার ভাঙ্গুরায় শেষ হল ৬ দিন ব্যাপি টেকনোলজি সপ্তাহ \

এওয়ান নিউজ: গতকাল সফলতার সাথেই পাবনার ভাঙ্গুড়ার জরিনা রহিম বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে শেষ হলো ৬ দিন ব্যাপি টেকনোলজি সপ্তাহ। এ সময় স্কুল অব রোবটিক্সের আওতায় স্কুলের ছাত্রীরা জীবনের প্রথম রোবট সম্পর্কে ধারনা পেয়েছে। প্রথমবার রোবটিক্সের ছোয়াতেই তারা শেষ করে লাইন ফলোয়ার রোবটের কোডিং। এছাড়াও ছিল আরডুইনো সম্পর্কে প্রাথমিক কিছু পর্ব। সবচেয়ে ভালোলাগার বিষয়টি ছিল বিদ্যুৎ চলে গেলেও তারা তাদের কাজ থামিয়ে রাখেনি। তারা লাইন ফলোয়ার রোবটের কোডিং শেষ করে রোবটগুলোকে রোবট ট্রাকে চালিয়ে দেখিয়েছে। সবশেষে ছিল আন্তঃ স্কুল কলেজ প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতার এক্টিভেশন এবং প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ সি এর কিছু প্রাথমিক সেশন। টেকনোলজি সপ্তাহের দৃশ্যমান সফলতা হিসেবে তারা তাদের লাইন ফলোয়ার রোবটগুলোকে রোবট ট্রাকে চালিয়ে দেখিয়েছে। ওরা রোবট গ্যাদারিং নিয়ে কাজ করেছে এবং আগামী ৬-৭ সেপ্টেম্বর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রে (টিএসসি) অনুষ্ঠিতব্য ২য় বাংলাদেশ রোবট অলিম্পিয়াডের জাতীয় পর্বে অংশগ্রহণ করবে। এছাড়া এ স্কুলের একটা টিম আগামীতে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক-প্রথম আলো আন্তস্কুল ও কলেজ প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতায় অংশ নেবে।

উল্লেখ্য,বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক (বিডিওএসএন ) এ বছরের শুরুতে “অবাক কুতূহলে” নামে একটি প্রোগ্রাম শুরু করে । যেখানে প্রত্যন্ত গ্রামের হাইস্কুলে পড়ুয়া কিছু মেয়ে জীবনে প্রথম বারের মত দুই দিনের জন্য ঢাকায় আসে। এই দুই দিনে তারা ঢাকার বিভিন্ন স্থাপনা ও টেকনোলজি অফিসে ঘুরে বেড়ায়। যেমন- জাতীয় সংসদ ভবন এলাকা,জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘর,বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নভোথিয়েটার,ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা,কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার, ডিবিসি টেলিভিশন কেন্দ্র, নাগরিক টেলিভিশন এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক প্রতিষ্ঠান জেনেক্স ইনফোসিস,কাজি আইটি,গ্রামীণ ফোন,জুমশেপার ইত্যাদি। এ প্রোগ্রামের মূল লক্ষ্য ছিলো প্রত্যন্ত গ্রামের মেয়েদের সামনে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির নানা সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচন করা। অবাক কুতূহলের প্রথম পর্বে পাবনার ভাঙ্গুড়া জরিনা রহিম বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় অংশ নেয় এবং স্কুলের ছাত্রীরা বিজ্ঞানের ক্ষেত্রে এক নতুন উৎসাহ নিয়ে গ্রামে ফিরে যায়। বিডিওএসএনের সভাপতি জাফর ইকবার স্যারও ছুটে এসেছিলেন তাদের উৎসাহ দিতে।পরবর্তীতে এ স্কুলেরই একটা টিম গত এপ্রিলে অনুষ্ঠিত শিশু-কিশোর বিজ্ঞান কংগ্রেসে অংশগ্রহন করে পোস্টার ক্যাটাগরিতে বিজয়ী হয়। এ স্কুলের ছাত্রীদেরকে বিজ্ঞান বিষয়ে আরো উৎসাহিত করতে বিডিওএসএন এই টেকনোলজি সপ্তাহের আয়োজন করে।

মন্তব্য করুন

আরো সংবাদ