ফটো গ্যালারি

রোহিঙ্গাদের ক্যাম্পে আটকে রাখার ব্যবস্থা নিতে সুপারিশ সংসদীয় কমিটির

রোহিঙ্গাদের ক্যাম্পে আটকে রাখার ব্যবস্থা নিতে সুপারিশ সংসদীয় কমিটির \

নিজস্ব প্রতিবেদক: রোহিঙ্গাদের ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে কক্সবাজারের শরণার্থী ক্যাম্পগুলোকে ঘিরে প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করেছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি।

বুধবার সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত কমিটির বৈঠকে রোহিঙ্গা এলাকার নিরাপত্তা নিয়ে আলোচনা হয়। বৈঠকে রোহিঙ্গা ক্যাম্প এলাকায় সেনাবাহিনীর কার্যক্রম নিয়ে একটি প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয়।

এতে বলা হয়, সেনাবাহিনী সাতটি ক্যাম্পের মাধ্যমে ওই এলাকায় অসামরিক প্রশাসনকে সহায়তা দিয়ে আসছে। জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত মিয়ানমারের নাগরিক ক্যাম্প এলাকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করার লক্ষ্যে অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সাথে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী প্রতিদিন ২১টি যৌথ টহলের মাধ্যমে নিরাপত্তা নিশ্চিত করে আসছে।

প্রতিবেদনে রোহিঙ্গাদের ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে শরণার্থী ক্যাম্পগুলোকে নিরাপত্তা বেষ্টনীর মধ্যে আনা প্রয়োজন বলেও উল্লেখ করা হয়েছে।

“বর্তমানে সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা স্থিতিশীল থাকলেও পাহাড়ী এলাকায় কাঁটাতারের বেড়ার অনুপস্থিতির কারণে জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গা নাগরিকেরা ক্যাম্প ছেড়ে সারা দেশে ছড়িয়ে পড়তে পারে। এর আলোকে ক্যাম্প এলাকায় উপযুক্ত কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে কাঁটাতারের বেড়া/ওয়্যার ফেন্সি/সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করা জরুরী প্রয়োজন।”

বৈঠকের পর কমিটির সদস্য মুহম্মদ ফারুক খান বলেন, “আমরা দেখতে পেয়েছি অনেক রোহিঙ্গা সেখান থেকে বেরিয়ে এদিক-সেদিক যাচ্ছে। এজন্য আমরা সেখানকার নিরাপত্তা নিশ্চিত করার সুপারিশ করেছি। “বলেছি নিরাপত্তা রক্ষার জন্য যা যা দরকার করতে হবে। কেউ যেন ক্যাম্প থেকে বের হতে না পারে আবার কেউ যেন ক্যাম্পে ঢুকতে না পারে সেটা দেখতে বলেছি। নিরাপত্তা যথাযথভাবে দিতে বলেছি।”

রোহিঙ্গারা ক্যাম্প এলাকার বাইরে দেশব্যাপী যেন ছড়িয়ে পড়তে না পারে সেজন্য প্রয়োজনে যৌথ টহলের ব্যবস্থাসহ সশস্ত্র বাহিনীকে সতর্ক থাকার সুপারিশ আগের বৈঠকে করা হয়েছিল।

সংসদ সচিবালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, বৈঠকে কক্সবাজার খুরুশকুল আশ্রায়ন প্রকল্পের কাজের মান বৃদ্ধি ও সঠিক সময়ে শেষ করার সুপারিশ করা হয়। বৈঠকে জাতিসংঘ শান্তি রক্ষা মিশনে সশস্ত্র বাহিনীর অংশগ্রহণ নিয়েও আলোচনা হয়।

বর্তমানে শান্তিরক্ষী প্রেরণের দিক থেকে বাংলাদেশ তৃতীয় অবস্থানে এবং সাত দেশের নয়টি মিশনে ৫৮৫৬ জন সদস্য শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে নিয়োজিত রয়েছে।

কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ সুবিদ আলী ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে বৈঠকে সদস্য মুহাম্মদ ফারুক খান, ইলিয়াস উদ্দিন মোল্লাহ্, মোতাহার হোসেন, মহিববুর রহমান ও নাহিদ ইজাহার খান অংশ নেন।

মন্তব্য করুন

আরো সংবাদ