ফটো গ্যালারি

চাঁদে নামার শেষ মুহূর্তে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন ভারতের চন্দ্রযান-২

‘মিশন ব্যর্থ’, বিজ্ঞানীদের ‘সান্ত্বনা’ দিয়ে উজ্জীবিত করলেন মোদি!

‘মিশন ব্যর্থ’, বিজ্ঞানীদের ‘সান্ত্বনা’ দিয়ে উজ্জীবিত করলেন মোদি! \

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: অধীর আগ্রহে গভীর রাত পর্যন্ত চোখ মেলে তাকিয়েছিল পুরো ভারত। মধ্যরাতে দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি পর্যন্ত হাজির হয়েছিলেন চাঁদের মাটিতে ভারতের বিক্রম দেখতে। কিন্তু চাঁদে নামার শেষ মুহূর্তে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে ভারতের চন্দ্রযান- ২। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত, বিক্রমের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করতে পারেননি দেশটির বিজ্ঞানীরা।

ভারতের মহাকাশ গবেষণা সংস্থার (ইসরো) বিজ্ঞানীরা জানান, শনিবার চাঁদের পৃষ্ঠে অবতরণের কয়েক সেকেন্ড আগেই চন্দ্রযান- ২ এর ল্যান্ডারের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।রাত ২.২০ মিনিটে ইসরোর চেয়ারম্যান কে শিবন জানান, চন্দ্রপৃষ্ঠ থেকে ২.১ কিলোমিটার পর্যন্ত স্বাভাবিকভাবে চলছিল বিক্রমের অবতরণ প্রক্রিয়া। তার পর যানের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।

প্রথম দেশ হিসেবে চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে অবতরণ করে প্রথম দেশের স্বীকৃতি পাওয়ার আশায় ছিল ভারত। তবে শেষমেশ মিশন সফলের বার্তা দিতে পারেনি ইসরোর বিজ্ঞানীরা।মধ্যরাতে বেঙ্গালুরুতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ইসরোর কন্ট্রোলরুমে বসে চাঁদে নামার অভিযান সরাসরি দেখছিলেন। তাঁকে পরিস্থিতি সম্পর্কে জানান ইসরোর বিজ্ঞানীরা।

চাঁদে নামার শেষ মুহূর্তে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে ভারতের চন্দ্রযান-২। এতে এক প্রকার মুষড়ে পড়েন ভারতের মহাকাশ গবেষণা সংস্থার (ইসরো) বিজ্ঞানীরা। তবে তাদের ‘সান্ত্বনা’ দিয়ে উজ্জীবিত করলেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

নরেন্দ্র মোদি বিজ্ঞানীদের বলেন, এটা জীবনের উত্থান ও পতন। এটা কম কৃতিত্ব নয়। আমি আপনাদের অভিন্দন জানাই। আপনারা সবাই দেশ, বিজ্ঞান ও মানুষের জন্য দারুণ কাজ করেছেন, সবরকমভাবে আমি আপনাদের সঙ্গে রয়েছি, সাহসের সঙ্গে এগিয়ে চলুন।

মোদি আরও বলেন, আগামী দিনেও ভারত মহাকাশে বিক্রম দেখবে। তাঁর কথায় , ভবিষ্যতে অভিযান করব। আমি আপনাদের পাশে। হিম্মত রাখুন। আপনাদের সাহসে দেশ আরও আনন্দ করবে।

মধ্যরাতে বেঙ্গালুরুতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ইসরোর কন্ট্রোলরুমে বসে চাঁদে নামার অভিযান সরাসরি দেখছিলেন। তাঁকে পরিস্থিতি সম্পর্কে জানান ইসরোর বিজ্ঞানীরা।

মন্তব্য করুন

আরো সংবাদ