ফটো গ্যালারি

সত্যিই কি ভূতে বিশ্বাস করেন জয়া?

সত্যিই কি ভূতে বিশ্বাস করেন জয়া? \

বিনোদন প্রতিবেদক: ‘দেবী’ হয়ে অতিপ্রাকৃতিক শক্তির উপস্থিতি দেখিয়েছেন বড়পর্দায়। এবার ‘ভূত’ হয়ে আসছেন তিনি নিজেই! বাংলাদেশের পর্দায় ‘দেবী’ হয়ে উপস্থিত হওয়া জয়া’র ভূত হয়ে পুনরায় আগমন ঘটছে এ খবরে আবারও রোমাঞ্চিত জয়া ভক্তরা। জয়াও তাই নিরাশ করলেন না। শনিবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে উন্মোচন করলেন ‘ভূতপরী’ চলচ্চিত্রটিতে তার প্রথম দর্শন। ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বোলপুরে শুরু হয়েছে জয়া আহসান অভিনীত নতুন এ চলচ্চিত্রের শুটিং।

দিনের আলোয় সাদা শাড়িতে জয়া বসে আছেন এক গ্রামের লাল মাটি ছুঁয়ে। শুটিং করতে গিয়ে এমন নিবিড় গ্রামে গিয়ে প্রকৃতির প্রেমে পড়ে গেছেন জয়া। শুটিংয়ের জন্য বেশকিছুদিন সেখানেই থাকতে হচ্ছে। পাখির কিচির মিচিরে ঘুম ভাঙছে, চোখ মেললেই দেখতে পাচ্ছেন সাঁওতাল রমনীদের হেঁটে যাওয়া।

‘দেবী’ হয়ে অতিপ্রাকৃতিক শক্তির উপস্থিতি দেখিয়েছেন বড়পর্দায়। এবার ‘ভূত’ হয়ে আসছেন। সত্যিই কি ভূতে বিশ্বাস করেন জয়া? কলকাতার এক গণমাধ্যমকে এমন প্রশ্নের উত্তরে জয়ার মুখ থেকে সম্মতিসূচক উত্তর পাওয়া গেলো।

“আলোর যেমন জীবজন্তু, গাছপালা থাকে, তেমনি অন্ধকারেরও এমন কিছু থাকে যারা কাউকে বিরক্ত করে না। মানুষের সঙ্গে সহাবস্থান করে। এটা বিশ্বাস করতে কোন অসুবিধা নেই।”

সৌকর্য ঘোষালের পরিচালনায় নতুন এ চলচ্চিত্রে ডানাওয়ালা এক ভূতের সাজে জয়ার ছবি দিয়ে প্রথম পোস্টার প্রকাশিত হয়েছে সম্প্রতি। এর শুটিং শুরু হয়েছে ২৬ অগাস্ট থেকে। চলচ্চিত্রটিতে জয়া আহসানের বিপরীতে অভিনয় করেছেন ঋত্বিক চক্রবর্তী।

এতে নিজের চরিত্রটি সম্পর্কে জয়া বলেন, “ভুতপরী’র চরিত্রটি আমি করিনি এর আগে। চরিত্রটি আগে করিনি বলতে যা বোঝায়, আসলে তা হলো- এখানে একটি ভূতের আত্মকাহিনী দেখানো হয়েছে। কিন্তু খুবই অন্যরকম ভাবে। দুটো সময়কে লিংক করানো হয়েছে।”

চলচ্চিত্রটিতে দেখা যাবে, সমনাম্বুলিজম-এ আক্রান্ত এক শিশু এক ভূতের মুখোমুখি হয়, যে সত্তর বছর আগে মারা গেছে। শিশু আর মহিলা ভূত আবিষ্কার করে যে, তারা একই রকম স্বপ্ন দেখে। ১৯৪৭ সালে মারা যাওয়া মহিলার ভূত ২০১৯ সালে এই শিশু ছেলেটির দেখা পায়। তার সাহায্যেই ভূত জানতে পারে, কেমন করে তার মৃত্যু হয়েছিল। এটি স্বাভাবিক মৃত্যু ছিল না, ছিল খুন।

মন্তব্য করুন

আরো সংবাদ