ফটো গ্যালারি

আওয়ামীলীগ অফিসে হামলা নেতাদের মারপিটের অভিযোগ

তালার খলিষখালী ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি ফারদিন এহসান দ্বীপ বহিষ্কার

তালার খলিষখালী ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি ফারদিন এহসান দ্বীপ বহিষ্কার \

নিজস্ব প্রতিনিধি: আওয়মী লীগ অফিসে হামলা চালিয়ে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক,যুগ্মসম্পাদকসহ ৫ জন সিনিয়র নেতাকে মারপিট ও ভাংচুর করার অভিযোগে খলিষখালী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি ফারদিন এহসান দ্বীপকে সংগঠন থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। স্থগীত করা হয়েছে সংগঠনের কার্যক্রম। ৯ সেপ্টম্বর তালা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শেখ সাদী ও সাধারন সম্পাদক মশিউর আলম সুমন স্বাক্ষরিত এক প্রেসবিজ্ঞপ্তি থেকে বিহিষ্কারের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়।
জানা গেছে ১৩ মার্চ উপজেলা নির্বাচন চলাকালে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ঘোষ সনৎ কুমারের পক্ষে খলিষখালী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা নির্বাচনী প্রচার প্রচারনা চালিয়ে আওয়ামীলীগ অফিসে বসে ছিলেন। এসময় পূর্ববিরোধের জের ধরে ছাত্রলীগ সভাপতি ফারদিন এহসান দ্বীপের নেতৃত্বে বহিরাগত কয়েকজন সন্ত্রাসী আওয়ামীলীগের অফিসে লাঠি সোটা নিয়ে হামলা চালায়। হামলায় ইউনিয়ন আওয়ামলীগের সাধারন সম্পাদক সমীর কান্তি দাশ,যুগ্ম সাধারন সম্পাদক সরদার শরিফুল ইসলাম, প্রচার প্রকাশনা সম্পাদক অজয় কুমার দাশ, ১ নং ওর্য়াড আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদ নীল কমল দাশ আহত হয়। এসময় ভাংচুর করা হয় অফিসের নির্বাচনী প্রচার সামগ্রী। নৌকার ব্যানার পোষ্টার ছিড়ে ফেলা হয়। ঘটনার প্রতিবাদে পরদিন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ বিক্ষোভ মিছিল সমাবেশ করে হামলাকারীদের গ্রেপ্তারসহ সংগঠন থেকে ছাত্রলীগ সভাপতির বহিষ্কারের দাবী জানানো হয়। সমাবেশে নৌকা প্রতিকের প্রাথী ঘোষ সনৎ কুমারসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন। পরবর্তীতে বিষয়টি নিয়ে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সাতক্ষীরা জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকের কাছে মৌখিক ও লিখিত অভিযোগ করেন।
সাতক্ষীরা জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল ইসলাম রেজা জানান,অভিযোগ পেয়ে বিষয়টি নিয়ে তালা উপজেলা ছাত্রলীগকে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেন। নির্দেশ পেয়ে ৯ সেপ্টম্বর তালা উপজেলা ছাত্রলীগ তদন্ত করে অভিযোগ প্রমানিত হওয়ায় খলিষখালী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি ফারদিন এহসান দ্বীপকে সংগঠন থেকে বহিষ্কার করেন। একই সাথে ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সকল কার্যক্রম স্থগীত করেন।
ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত সভাপতি ফারদিন এহসান দ্বীপের বিরুদ্ধে রয়েছে মাদক সেবনের অভিযোগ। ইতিপূর্বে মাদকসহ দেবহাটা থানা পুলিশের হাতে আটক হলেও সে সময় তদ্বিরে ছাড়া পেয়ে যান। এলাকায় তার বেপরওয়া আচারনে সংগঠনের ভাবমূর্তি বিনষ্ট হয়। দুই বছরের অধিক সময় ছাত্রলীগের সভাপতির থাকা কালে একটি ওয়ার্ড কমিটি করতে পারেনি এমনটা স্বিকার করে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক মশিউল আলম সুমন। স্থানীয়ভাবে অভিযোগ রয়েছে কয়েক জন স্থানীয় ছাত্রলীগ নেতাকে বিভিন্ন সময় মোবাইলে হুমকি ধামকি দিয়ে তার পক্ষে আনার চেষ্টা করেন ফারদিন এহসান দ্বীপ। এঘটনায় স্থানীয় পুলিশের কাছে ওই ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে অভিযোগও করা হয়।

মন্তব্য করুন

আরো সংবাদ