ফটো গ্যালারি

আফিফের খেলা দেখে বিসিবি সভাপতিকে প্রধানমন্ত্রীর ফোন-‘ও আগে নামেনি কেন?’

আফিফের খেলা দেখে বিসিবি সভাপতিকে প্রধানমন্ত্রীর ফোন-‘ও আগে নামেনি কেন?’ \

ক্রীড়া প্রতিবেদক: ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম ম্যাচে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে নেমে বাংলাদেশ যখন বিপর্যস্ত, তখন ক্রীড়াপ্রেমী উদ্বিগ্ন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ফোন পেয়েছিলেন বলে জানান বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান পাপন। দল যখন আবার ভালো অবস্থায় তখনও সরকার প্রধানের উচ্ছ্বসিত ফোন পান নাজমুল। প্রধানমন্ত্রী ম্যাচ জেতানো আফিফ হোসেনের প্রশংসা করেন। পরে এই তরুণসহ দলের সিনিয়র ক্রিকেটারদের সঙ্গে কথাও বলেন তিনি। অনেক দিন পর জয়ের মাঝে ফেরায় জানান শুভেচ্ছা।

হতাশার বিশ্বকাপের পর শ্রীলঙ্কায় গিয়ে ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ। এরপর আফগানিস্তানের কাছে টেস্টে বিশাল হার। বাংলাদেশের ক্রিকেটে চলছিল দুঃসময়। শুক্রবার সেই দুঃসময় আরও বাড়ারই উপক্রম হয়।ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টিতে নেমে ১৮ ওভারে জিম্বাবুয়ের দেওয়া ১৪৫ রানের লক্ষ্যে বিপর্যয়ে পড়ে বাংলাদেশ। ৬০ রানেই হারায় ৬ উইকেট।

দলের এমন সময়ে খেলা দেখতে থাকা প্রধানমন্ত্রী ফোন করেন বলে জানান নাজমুল, “প্রধানমন্ত্রী খেলার মাঝেই ফোন করছিলেন, বলছিলেন, ‘পাপন এইটা কি হচ্ছে? এরকম হচ্ছে কেন? উনি তখন চিন্তিত।”

বিপর্যস্ত পরিস্থিতিতে থেকে সপ্তম উইকেটে ৮২ রানের জুটিতে দলকে টানেন মোসাদ্দেক হোসেন ও আফিফ। তাতেই জিতে যায় বাংলাদেশ। দলের ভালো অবস্থাতেও বোর্ড প্রধানের কাছে আসে প্রধানমন্ত্রীর ফোন, “তারপর যখন আফিফ আসল। আফিফের খেলা দেখে উনি বললেন- ‘ও আগে নামে নাই কেন? একে তো আগে দেখিনি’। আমি বললাম, ‘আপা ও তুলনামূলকভাবে একদম নতুন। এসেছে মাত্র, ১৯ বছর বয়স। ওর আসলে পাঁচে খেলার কথা ছিল। যাইহোক যেখানে খেলেছে সেট বড় কথা না। ভালো খেলেছে’, উনি বলল, ‘ভালো খেলেছে, ওর খেলা দেখছি।’

ম্যাচ যখন টানটান উত্তেজনায় তখন আবার সরকার প্রধান ফোনে প্রতিক্রিয়া দেন বলে জানান বিসিবি প্রধান, “উনি প্রতিটা বলই দেখেছে। ও আউট হওয়ার আগে যে চার মারল এটা দেখে বলেছে, ‘এই শটটা দারুণ খেলেছে। ’ তাই খেলা শেষ হওয়ার পর পর ভাবলাম আমি একটু কথা বলিয়ে দেই। এত আফিফের কথ বলছে যখন। যেহেতু অধিনায়ক সাকিবও আছে। ওদের সঙ্গে কথা বলেছে। কি কথা বলেছে আমি আসলে জানি না।”

২৫ বলে ৫২ রান করে ম্যাচ সেরা আফিফ জানান ফোনে তাদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী, “উনি প্রশংসা করেছেন, শুভেচ্ছা দিয়েছেন।”

মন্তব্য করুন

আরো সংবাদ